রাত ১০:৩১ | রবিবার | ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

অটো ছিনিয়ে নিতেই সিয়াম হত্যাকান্ড, ২ ঘাতক গ্রেফতার, আলামত উদ্ধার

বিল্লাল হোসেন প্রান্তঃ

অটোবাইক ছিনিয়ে নিতেই ষষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্র সিয়ামকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে ঘাতকরা। লেখাপড়ার পাশাপাশি অটো চালিয়ে পরিবারকে সহায়তা করতো কিশোর সিয়াম। ছিনতাইকৃত অটোটি বিক্রি করা হয় মাত্র পাঁচ হাজার নয়শত টাকায়। ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা সংস্থার তদন্তে বেরিয়ে এসেছে হত্যাকান্ডের এমন মর্মান্তিক নেপথ্যে কাহিনী। হত্যাকান্ডে জড়িত দুই ঘাতককে গ্রেফতারসহ আলামত উদ্ধার করেছে ডিবি পুলিশ।

 

 

ডিবি পুলিশ জানায়, ফুলপুর উপজেলার ভাইটকান্দী হাইস্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র সিয়াম(১৩)। পরিবারের কষ্ট লাঘবে লেখাপড়ার পাশাপাশি অন্যের অটো ভাড়ায় চালাতো সে। ঘটনার দিন ২৯ জানুয়ারি যথারিতি অটো নিয়ে বের হয় সিয়াম। তবে সেদিন সন্ধ্যায় আর বাড়ি ফেরা হয়নি তার। ঘাতকরা সিয়ামকে দুইশত টাকা ভাড়ায় নিয়ে যায় তারাকান্দা উপজেলায়। সারাদিন ঘুরাঘুরির পর সন্ধ্যায় তাকে হত্যা করে কাটলী বাজার ব্রীজের নীচে ফেলে রেখে যায়।

 

 

৩০ জানুয়ারি ব্রীজের নীচ থেকে সিয়ামের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। চাঞ্চল্যকর এ হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনে পুলিশ সুপার মোহাঃ আহমার উজ্জামানের নির্দেশে মাঠে নামে জেলা গোয়েন্দা সংস্থা অফিসার ইনচার্জ শাহ কামাল আকন্দসহ তার টিম। তিনদিনের টানা তদন্তে বেড়িয়ে আসে হত্যার মূল রহস্য। মাত্র পাঁচ হাজার নয়শত টাকায় বিক্রিকৃত অটোর জন্য নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে কিশোর সিয়ামকে। হত্যাকান্ডে জড়িত মোঃ খাইরুল ইসলাম (১৬) ও মোঃ মিজানুর রহমান ওরফে মেজুকে ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ।

সিয়াম হত্যার ঘাতককে গ্রেফতারের পর তাদের দেয়া তথ্যমতে ছিনতাইকৃত অটো উদ্ধার করে ডিবি পুলিশ। পাটগুদাম রেলির মোড় রতনের গ্যারেজ থেকে উদ্ধার হয় সেই অটোর বিছিন্ন করা অংশ ও ব্যাটারি। গ্রেফতার করা হয় ছিনতাইকৃত অটো ক্রেতা রতন কুমার সাহাকে (৪৫)।

 

 

ঘটনাটি ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি করে ময়মনসিংহের সর্বমহলে। এ হত্যাকান্ডের নেপথ্যে কিশোরদের অপরাধ প্রবনতার যে নজির সৃষ্টি হয়েছে তা নিয়ে সচেতন মহলে ব্যাপক চাঞ্চল্যে দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে উঠতি বয়সী কিশোরদের গ্যাং ওয়ার্ক ময়মনসিংহে এর আগেও আলোচনার কারণ হয়েছে। সম্প্রতি নেশার টাকা জোগার করতে বাকৃবিতে অটো চালক খুন হওয়ার ঘটনা ঘটে। ময়মনসিংহে অটো ছিনতাইয়ের জেরে একের পর এক হত্যাকান্ড যেন কোনভাবে থামানে যাচ্ছেনা। যদিও প্রতিটি হত্যাকান্ড সংঘটিত হওয়ার পর কোন আসামিই পাড় পায়নি। ডিবি পুলিশ প্রতিটি হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করতে সফল হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» দুঃসময়ের ত্যাগী নেতৃত্বের হাতেই থাকবে আগামী আওয়ামী লীগ- ময়মনসিংহে বাহাউদ্দিন নাছিম

» শেখ রেহেনার জন্মদিনে ময়মনসিংহ সদর উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগে মিলাদ ও দোয়া

» বাহাউদ্দিন নাসিম এর আগমন উপলক্ষে  ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত

» কথা ক্লিয়ার-শিক্ষিত,ক্লিন ইমেজ যুবকদের জন্য অবারিত যুবলীগ- কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক খসরু

» ময়মনসিংহ জেলা ও মহানগর যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে

» ময়মনসিংহ মহানগরী জু্ড়ে শোক আয়োজনে মোহিত উর রহমান শান্ত

» শোক দিবসে যুবলীগনেতা সব্যসাচীর উদ্যেগে অসহায়দের মাঝে বস্ত্র বিতরণ ও গণভোজ

» ১৫ আগস্ট পালন উপলক্ষে ময়মনসিংহ মহানগর সাধারণ সম্পাদকের মতবিনিময় সভা

» ময়মনসিংহে মহানগর যুবলীগের উদ্যোগে মাসব্যাপী রেশনিং সিস্টেমে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

» শর্ত সাপেক্ষে খুলে দেয়া হয়েছে জেলা স্কুল মোড়ের সেই ত্রুটিপূর্ণ ১৪ তলা ভবন

» সংসার ফিরে পেতে চায় ময়মনসিংহের ডাক্তার জান্নাতুল   

» নগর জুড়ে ময়মনসিংহ মহানগর সাধারণ সম্পাদকের ইফতার বিতরণ

» প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রাপ্যদের হাতে তুলে দিচ্ছেন ময়মনসিংহের ডিসি এনামুল হক

» ময়মনসিংহে অসহায় কৃষকের ধান কেটে ঘরে পৌছে দিলো ছাত্রলীগ নেতা টুটুল

» ময়মনসিংহ টিসিএ’র সভাপতি নুরুজ্জামান সম্পাদক দেলোয়ার 

আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com

,

basic-bank

অটো ছিনিয়ে নিতেই সিয়াম হত্যাকান্ড, ২ ঘাতক গ্রেফতার, আলামত উদ্ধার

বিল্লাল হোসেন প্রান্তঃ

অটোবাইক ছিনিয়ে নিতেই ষষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্র সিয়ামকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে ঘাতকরা। লেখাপড়ার পাশাপাশি অটো চালিয়ে পরিবারকে সহায়তা করতো কিশোর সিয়াম। ছিনতাইকৃত অটোটি বিক্রি করা হয় মাত্র পাঁচ হাজার নয়শত টাকায়। ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা সংস্থার তদন্তে বেরিয়ে এসেছে হত্যাকান্ডের এমন মর্মান্তিক নেপথ্যে কাহিনী। হত্যাকান্ডে জড়িত দুই ঘাতককে গ্রেফতারসহ আলামত উদ্ধার করেছে ডিবি পুলিশ।

 

 

ডিবি পুলিশ জানায়, ফুলপুর উপজেলার ভাইটকান্দী হাইস্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র সিয়াম(১৩)। পরিবারের কষ্ট লাঘবে লেখাপড়ার পাশাপাশি অন্যের অটো ভাড়ায় চালাতো সে। ঘটনার দিন ২৯ জানুয়ারি যথারিতি অটো নিয়ে বের হয় সিয়াম। তবে সেদিন সন্ধ্যায় আর বাড়ি ফেরা হয়নি তার। ঘাতকরা সিয়ামকে দুইশত টাকা ভাড়ায় নিয়ে যায় তারাকান্দা উপজেলায়। সারাদিন ঘুরাঘুরির পর সন্ধ্যায় তাকে হত্যা করে কাটলী বাজার ব্রীজের নীচে ফেলে রেখে যায়।

 

 

৩০ জানুয়ারি ব্রীজের নীচ থেকে সিয়ামের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। চাঞ্চল্যকর এ হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনে পুলিশ সুপার মোহাঃ আহমার উজ্জামানের নির্দেশে মাঠে নামে জেলা গোয়েন্দা সংস্থা অফিসার ইনচার্জ শাহ কামাল আকন্দসহ তার টিম। তিনদিনের টানা তদন্তে বেড়িয়ে আসে হত্যার মূল রহস্য। মাত্র পাঁচ হাজার নয়শত টাকায় বিক্রিকৃত অটোর জন্য নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে কিশোর সিয়ামকে। হত্যাকান্ডে জড়িত মোঃ খাইরুল ইসলাম (১৬) ও মোঃ মিজানুর রহমান ওরফে মেজুকে ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ।

সিয়াম হত্যার ঘাতককে গ্রেফতারের পর তাদের দেয়া তথ্যমতে ছিনতাইকৃত অটো উদ্ধার করে ডিবি পুলিশ। পাটগুদাম রেলির মোড় রতনের গ্যারেজ থেকে উদ্ধার হয় সেই অটোর বিছিন্ন করা অংশ ও ব্যাটারি। গ্রেফতার করা হয় ছিনতাইকৃত অটো ক্রেতা রতন কুমার সাহাকে (৪৫)।

 

 

ঘটনাটি ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি করে ময়মনসিংহের সর্বমহলে। এ হত্যাকান্ডের নেপথ্যে কিশোরদের অপরাধ প্রবনতার যে নজির সৃষ্টি হয়েছে তা নিয়ে সচেতন মহলে ব্যাপক চাঞ্চল্যে দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে উঠতি বয়সী কিশোরদের গ্যাং ওয়ার্ক ময়মনসিংহে এর আগেও আলোচনার কারণ হয়েছে। সম্প্রতি নেশার টাকা জোগার করতে বাকৃবিতে অটো চালক খুন হওয়ার ঘটনা ঘটে। ময়মনসিংহে অটো ছিনতাইয়ের জেরে একের পর এক হত্যাকান্ড যেন কোনভাবে থামানে যাচ্ছেনা। যদিও প্রতিটি হত্যাকান্ড সংঘটিত হওয়ার পর কোন আসামিই পাড় পায়নি। ডিবি পুলিশ প্রতিটি হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করতে সফল হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ খবর



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com