সকাল ৭:৪৯ | সোমবার | ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

মমেক হাসপাতালে ক্যাথল্যাব স্থাপন, কার্যক্রম শুরু ফেব্রুয়ারিতে

বিল্লাল হোসেন প্রান্তঃ

হার্টের রোগীদের জন্য সুসংবাদ। আর নয় ঢাকায়। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেই হবে এনজিওগ্রাম পরীক্ষা। হার্টের ব্লক হয়ে যাওয়া রক্তনালি বেলুন ও রিং (স্টেন্ট) এর মাধ্যমে সচল করা যাবে। সরকার নির্ধারিত মূল্যে গরীব রোগীরাও পাবে হার্টের চিকিৎসা।

 

 

এসব কার্যক্রম করতে যে মেশিনের প্রয়োজন তাকে ক্যাথল্যাব বলে। যেটি ইতিমধ্যেই স্থাপন করা হয়ে গেছে। কার্যক্রম শুরু হবে ফেব্রুয়ারি মাসে। স্থাপনের ৫৭ বছর পর চিকিৎসা সেবায় আরও একধাপ এগিয়ে গেলো ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। সুসংবাদটি সামাজিক মাধ্যমে জানিয়েছেন ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাসির উদ্দিন আহমেদ।

 

 

২০ জানুয়ারি রাত সাড়ে এগারোটায় নিজের ফেইসবুক আইডিতে ক্যাথল্যাব স্থাপনের খবরটি প্রকাশ করেন হাসপাতালের পরিচালক। স্ট্যাটাসটি হুবহু নিচে তুলে ধরা হলোঃ-

 

 

#ক্যাথল্যাব_কি?
এই মেশিন দিয়ে হৃদরোগ বিষেশজ্ঞগন হার্টের নিজস্ব রক্তনালির রক্তচলাচল কেমন আছে তা সরাসরি দেখতে পারেন, এবং প্রয়োজন অনুযায়ী বন্ধ রক্তনালির রক্তচলাচল বেলুন ও রিং (স্টেন্ট) এর মাধ্যমে সচল করে দিতে পারেন। এর মাধ্যমে হার্ট এটাকের রোগীগন পুনরায় স্বাভাবিক জীবন ফিরে পান।

 

 

#এনজিওগ্রাম_কি?
হার্টের নিজস্ব রক্তনালির রক্তচলাচল কি অবস্থায় আছে সেটি দেখার পদ্ধতির নাম এনজিওগ্রাম।ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ক্যাথল্যাবে এটি করা হবে। এটা হার্টের রক্ত নালীর একটি পরীক্ষা। চিকিৎসা নয়।

 

 

★এনজিওগ্রাম করলেই রিং বা স্টেন্ট পরাতে হয় না, তবে রক্তনালির ভেতরে রক্তচলাচল বেশী কমে গেলে বা বন্ধ হয়ে গেলে অবশ্যই বেলুন এর মাধ্যমে রিং বা কার্ডিয়াক স্টেন্ট স্থাপন করতে হবে।
এই রিং বা স্টেন্ট পরানোর পদ্ধতিকেই এনজিওপ্লাস্টি বলে। এটা চিকিৎসা।
সরকারি হাসপাতালে সরকার নির্ধারিত এনজিওগ্রামের ফি রয়েছে।
এছাড়া এনজিওপ্লাস্টির জন্য অর্থাৎ রিং বা স্টেন্ট পরানোর জন্য প্রয়োজনীয় বেলুন, স্টেন্ট, ক্যাথেটার সহ অন্যান্য উপকরণ এর সরকার নির্ধারিত মুল্য রয়েছে।
এগুলো সংশ্লিষ্ট রোগীকে বহন করতে হবে। মুল্যতালিকা কার্ডিওলজি বিভাগে দেয়া থাকবে।

 

 

★এছাড়াও টেম্পোরারি পেসমেকার, পার্মানেন্ট পেসমেকার স্থাপন করার কাজ ও চলবে সরকারি মুল্যেই।

 

 

★গরীব রোগীদের হতাশ হবার কারন নেই।যথাযথ প্রমান সাপেক্ষে ফ্রী এনজিওগ্রাম এবং প্রয়োজনে ফ্রী স্টেন্ট পরানোর ব্যবস্থা করা হবে। যতদিন আল্লাহ আমাকে তৌফিক দেন।

 

 

★উল্লেখ্য রিং বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন মাপের রয়েছে, এবং এগুলোর দাম সরকারি ওসুধ প্রশাসন থেকে নির্ধারণ করা রয়েছে।
সকল ব্যায় সরকারি রশিদ এর মাধ্যমে হবে।

 

 

★আপনাদের হাসপাতাল।এর সকল সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা হয়েছে। আমি চলে গেলেও এ হাসপাতালের স্বাভাবিক গতির জন্য আপনাদের সবার দায়িত্ব আছে; যাতে হাসপাতাল দুর্বৃত্ত দের আস্তানা না হয়। আল্লাহর সুবহানাল্লাহ এর দয়ায় তার একজন অতি নগন্য দাস হিসেবে আমি ৪ বছর ৩ মাস নিরলস ভাবে আপনাদের সহযোগিতায় যতটা সম্ভব করেছি। সব পারিনি। আপনারা হাসপাতাল কে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবেন। প্রশংসা শুধুমাত্র আল্লাহ সুবহানাহু তায়ালার প্রাপ্য

বিনীত
পরিচালক
ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।

Print Friendly, PDF & Email

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» যোগ্য জায়গায় যোগ্য ব্যক্তিকে না বসালে ক্ষতি হয় নিজের-মোহিত উর রহমান শান্ত

» দুর্ধর্ষ ট্রেন ডাকাত চক্রের ৫ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-১৪

» তিন নির্দেশনায় ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা সম্পন্ন

» দুঃসময়ের ত্যাগী নেতৃত্বের হাতেই থাকবে আগামী আওয়ামী লীগ- ময়মনসিংহে বাহাউদ্দিন নাছিম

» শেখ রেহেনার জন্মদিনে ময়মনসিংহ সদর উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগে মিলাদ ও দোয়া

» বাহাউদ্দিন নাসিম এর আগমন উপলক্ষে  ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত

» কথা ক্লিয়ার-শিক্ষিত,ক্লিন ইমেজ যুবকদের জন্য অবারিত যুবলীগ- কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক খসরু

» ময়মনসিংহ জেলা ও মহানগর যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে

» ময়মনসিংহ মহানগরী জু্ড়ে শোক আয়োজনে মোহিত উর রহমান শান্ত

» শোক দিবসে যুবলীগনেতা সব্যসাচীর উদ্যেগে অসহায়দের মাঝে বস্ত্র বিতরণ ও গণভোজ

» ১৫ আগস্ট পালন উপলক্ষে ময়মনসিংহ মহানগর সাধারণ সম্পাদকের মতবিনিময় সভা

» ময়মনসিংহে মহানগর যুবলীগের উদ্যোগে মাসব্যাপী রেশনিং সিস্টেমে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

» শর্ত সাপেক্ষে খুলে দেয়া হয়েছে জেলা স্কুল মোড়ের সেই ত্রুটিপূর্ণ ১৪ তলা ভবন

» সংসার ফিরে পেতে চায় ময়মনসিংহের ডাক্তার জান্নাতুল   

» নগর জুড়ে ময়মনসিংহ মহানগর সাধারণ সম্পাদকের ইফতার বিতরণ

আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com

,

basic-bank

মমেক হাসপাতালে ক্যাথল্যাব স্থাপন, কার্যক্রম শুরু ফেব্রুয়ারিতে

বিল্লাল হোসেন প্রান্তঃ

হার্টের রোগীদের জন্য সুসংবাদ। আর নয় ঢাকায়। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালেই হবে এনজিওগ্রাম পরীক্ষা। হার্টের ব্লক হয়ে যাওয়া রক্তনালি বেলুন ও রিং (স্টেন্ট) এর মাধ্যমে সচল করা যাবে। সরকার নির্ধারিত মূল্যে গরীব রোগীরাও পাবে হার্টের চিকিৎসা।

 

 

এসব কার্যক্রম করতে যে মেশিনের প্রয়োজন তাকে ক্যাথল্যাব বলে। যেটি ইতিমধ্যেই স্থাপন করা হয়ে গেছে। কার্যক্রম শুরু হবে ফেব্রুয়ারি মাসে। স্থাপনের ৫৭ বছর পর চিকিৎসা সেবায় আরও একধাপ এগিয়ে গেলো ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। সুসংবাদটি সামাজিক মাধ্যমে জানিয়েছেন ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাসির উদ্দিন আহমেদ।

 

 

২০ জানুয়ারি রাত সাড়ে এগারোটায় নিজের ফেইসবুক আইডিতে ক্যাথল্যাব স্থাপনের খবরটি প্রকাশ করেন হাসপাতালের পরিচালক। স্ট্যাটাসটি হুবহু নিচে তুলে ধরা হলোঃ-

 

 

#ক্যাথল্যাব_কি?
এই মেশিন দিয়ে হৃদরোগ বিষেশজ্ঞগন হার্টের নিজস্ব রক্তনালির রক্তচলাচল কেমন আছে তা সরাসরি দেখতে পারেন, এবং প্রয়োজন অনুযায়ী বন্ধ রক্তনালির রক্তচলাচল বেলুন ও রিং (স্টেন্ট) এর মাধ্যমে সচল করে দিতে পারেন। এর মাধ্যমে হার্ট এটাকের রোগীগন পুনরায় স্বাভাবিক জীবন ফিরে পান।

 

 

#এনজিওগ্রাম_কি?
হার্টের নিজস্ব রক্তনালির রক্তচলাচল কি অবস্থায় আছে সেটি দেখার পদ্ধতির নাম এনজিওগ্রাম।ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ক্যাথল্যাবে এটি করা হবে। এটা হার্টের রক্ত নালীর একটি পরীক্ষা। চিকিৎসা নয়।

 

 

★এনজিওগ্রাম করলেই রিং বা স্টেন্ট পরাতে হয় না, তবে রক্তনালির ভেতরে রক্তচলাচল বেশী কমে গেলে বা বন্ধ হয়ে গেলে অবশ্যই বেলুন এর মাধ্যমে রিং বা কার্ডিয়াক স্টেন্ট স্থাপন করতে হবে।
এই রিং বা স্টেন্ট পরানোর পদ্ধতিকেই এনজিওপ্লাস্টি বলে। এটা চিকিৎসা।
সরকারি হাসপাতালে সরকার নির্ধারিত এনজিওগ্রামের ফি রয়েছে।
এছাড়া এনজিওপ্লাস্টির জন্য অর্থাৎ রিং বা স্টেন্ট পরানোর জন্য প্রয়োজনীয় বেলুন, স্টেন্ট, ক্যাথেটার সহ অন্যান্য উপকরণ এর সরকার নির্ধারিত মুল্য রয়েছে।
এগুলো সংশ্লিষ্ট রোগীকে বহন করতে হবে। মুল্যতালিকা কার্ডিওলজি বিভাগে দেয়া থাকবে।

 

 

★এছাড়াও টেম্পোরারি পেসমেকার, পার্মানেন্ট পেসমেকার স্থাপন করার কাজ ও চলবে সরকারি মুল্যেই।

 

 

★গরীব রোগীদের হতাশ হবার কারন নেই।যথাযথ প্রমান সাপেক্ষে ফ্রী এনজিওগ্রাম এবং প্রয়োজনে ফ্রী স্টেন্ট পরানোর ব্যবস্থা করা হবে। যতদিন আল্লাহ আমাকে তৌফিক দেন।

 

 

★উল্লেখ্য রিং বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন মাপের রয়েছে, এবং এগুলোর দাম সরকারি ওসুধ প্রশাসন থেকে নির্ধারণ করা রয়েছে।
সকল ব্যায় সরকারি রশিদ এর মাধ্যমে হবে।

 

 

★আপনাদের হাসপাতাল।এর সকল সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা হয়েছে। আমি চলে গেলেও এ হাসপাতালের স্বাভাবিক গতির জন্য আপনাদের সবার দায়িত্ব আছে; যাতে হাসপাতাল দুর্বৃত্ত দের আস্তানা না হয়। আল্লাহর সুবহানাল্লাহ এর দয়ায় তার একজন অতি নগন্য দাস হিসেবে আমি ৪ বছর ৩ মাস নিরলস ভাবে আপনাদের সহযোগিতায় যতটা সম্ভব করেছি। সব পারিনি। আপনারা হাসপাতাল কে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবেন। প্রশংসা শুধুমাত্র আল্লাহ সুবহানাহু তায়ালার প্রাপ্য

বিনীত
পরিচালক
ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ খবর



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com