দুপুর ১:৫৯ | বুধবার | ২৫শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ময়মনসিংহের কালো অধ্যায়-সিনেমা হলে বোমা হামলা- নির্যাতিত মতিউর রহমান

বিল্লাল হোসেন প্রান্তঃ

২০০২ সালের ৭ ডিসেম্বর ময়মনসিংহের ৪ সিনেমা হলে সিরিজ বোমা হামলার ঘটনা
ঘটায় বিএনপি জামায়তের সন্ত্রাসীরা। এতে ১৮ জনের মৃত্যু হয়; আহত হন আরও দুই শতাধিক।

 

আজকের এই দিনে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল তৎকালীন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান (বর্তমান ধর্মমন্ত্রী) ও তার ছেলে মোহিত উর রহমান শান্ত, সাংগঠনিক সম্পাদক সাবের হোসেন চৌধুরীসহ ৩১ জনকে।

 

সে সময় এ ঘটনায় সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়। তৎকালীন সরকারের নির্দেশে নির্মম নির্যাতন চালানো হয় অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের উপর।

 

২০০৬ সালের ৬ জুন জামালপুরের প্রথম শ্রেণির ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ‘জেএমবি নেতা ও শূরা সদস্য’ সালেহীন ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে চার সিনেমা হলে বোমা হামলায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন।

 

মামলার আসামিরা হয় – ‘জেএমবি সদস্য’ আনোয়ার হোসেন ওরফে ভাগ্নে শহীদ, সালাহউদ্দিন আহম্মেদ ওরফে সালেহীন ও জাহিদুল ইসলাম সুমন ওরফে বোমা মিজান।

 

আর পুলিশ প্রথমে আদালতে অভিযোগপত্র দিয়েছিল ৪৩ জনের বিরুদ্ধে। পরে সালেহীনের দেওয়া স্বীকারোক্তি মোতাবেক অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, সাবের হোসেনসহ ৪০ জনকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।”

তবে১৬ বছরেও বিচার হয়নি প্রকৃত অপরাধীদের।

Print Friendly, PDF & Email

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» সাংগঠনিক ব্যাক্তিত্ব নির্বাচন করে নেতৃত্বে আনা হবে-ময়মনসিংহ মহানগর ওয়ার্ড সম্মেলনে বক্তারা

» শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে ময়মনসিংহ যুবলীগের বর্ণাঢ্য র‍্যালী

» নেত্রকোনায় কোটি টাকার জুয়ার আসর সেহরি করিয়ে বিদায়; পুলিশ ম্যানেজ!

» গৌরীপুরে সরকারি সম্পত্তির শত শত ট্রাক মাটি কেটে সাবাড় করছে আ’লীগ নেতার ছেলে !  

» ময়মনসিংহ জেলা যুবলীগের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মঞ্চ কাঁপালেন এলিজা

» শিক্ষকের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগে মমেক ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদকসহ ১০ শিক্ষার্থী বহিস্কার

» ময়মনসিংহ মহানগর যুবলীগের প্রতিবাদ মিছিল ও সমাবেশ

» সাম্প্রদায়িকতা রুখবে সংস্কৃতি

» যুবলীগকে মাঠে নামতে বাধ্য করবেন না- বিএনপিকে এড.আজহারুল ইসলামের হুশিয়ারী

» মতিউর রহমানকে “একুশে পদক” প্রদান করায় শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে আনন্দের বণ্যা

» কোতোয়ালী যুবলীগ নেতা আদনানের উদ্যেগে পথ মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ

» ময়মনসিংহ রাজনীতির প্রিন্সিপাল অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের জীবন বৃত্তান্ত

» আগুনকে হাতুড়িপেটায় আহত করে ছিনতাইকারী সাজাতে ভিডিও ধারণ!

» ময়মনসিংহে ছাত্রলীগ কর্মী আগুনকে হাতুড়িপেটায় গুরুতর আহত

» ময়মনসিংহে ক্যান্সার কিডনি হৃদরোগ ইউনিটের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা 

আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com

,

basic-bank

ময়মনসিংহের কালো অধ্যায়-সিনেমা হলে বোমা হামলা- নির্যাতিত মতিউর রহমান

বিল্লাল হোসেন প্রান্তঃ

২০০২ সালের ৭ ডিসেম্বর ময়মনসিংহের ৪ সিনেমা হলে সিরিজ বোমা হামলার ঘটনা
ঘটায় বিএনপি জামায়তের সন্ত্রাসীরা। এতে ১৮ জনের মৃত্যু হয়; আহত হন আরও দুই শতাধিক।

 

আজকের এই দিনে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল তৎকালীন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান (বর্তমান ধর্মমন্ত্রী) ও তার ছেলে মোহিত উর রহমান শান্ত, সাংগঠনিক সম্পাদক সাবের হোসেন চৌধুরীসহ ৩১ জনকে।

 

সে সময় এ ঘটনায় সারাদেশে রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়। তৎকালীন সরকারের নির্দেশে নির্মম নির্যাতন চালানো হয় অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের উপর।

 

২০০৬ সালের ৬ জুন জামালপুরের প্রথম শ্রেণির ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ‘জেএমবি নেতা ও শূরা সদস্য’ সালেহীন ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে চার সিনেমা হলে বোমা হামলায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন।

 

মামলার আসামিরা হয় – ‘জেএমবি সদস্য’ আনোয়ার হোসেন ওরফে ভাগ্নে শহীদ, সালাহউদ্দিন আহম্মেদ ওরফে সালেহীন ও জাহিদুল ইসলাম সুমন ওরফে বোমা মিজান।

 

আর পুলিশ প্রথমে আদালতে অভিযোগপত্র দিয়েছিল ৪৩ জনের বিরুদ্ধে। পরে সালেহীনের দেওয়া স্বীকারোক্তি মোতাবেক অধ্যক্ষ মতিউর রহমান, সাবের হোসেনসহ ৪০ জনকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।”

তবে১৬ বছরেও বিচার হয়নি প্রকৃত অপরাধীদের।

Print Friendly, PDF & Email

সর্বশেষ খবর



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com