রাত ১১:৩২ | সোমবার | ৩০শে মার্চ, ২০২০ ইং | ১৬ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ভালুকা থানার ওসি মামুনের সফলতা এখানেই-বিদায় বেলায় কাঁদালেন সকলকে

বিল্লাল হোসেন প্রান্ত:

ময়মনসিংহ  জেলার ভালুকা মডেল থানার পুলিশ ইন্সপেক্টর ও সফল ওসি মামুন-অর-রশিদ পিপিএম বদলি জনিত কারনে চলে গেলেন। বিদায় বেলা থানায় কর্মরত সকল সদস্য এমনকি গ্রাম পুলিশের সদস্যদেরও কাঁদিয়ে গেলেন তিনি।
এই বিদায়ে  উপজেলার সাধারন অসহায় হতদরিদ্র মানুষগুলোও অশ্রুশিক্ত হয়ে ওসি মামুনকে বিদায় জানান। এখানেই একজন সফল পুলিশ কর্মকর্তার পরিচয় পাওয়া যায়।

বৃহস্পতিবার (৩ মে ) দুপুরে ভালুকা মডেল থানার সভাকক্ষে গ্রাম পুলিশের উদ্যোগে বিদায় সংবর্ধণার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে মামুন-অর-রশিদকে বিদায় দেওয়ার সময় আবেগ আপ্লুত হয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন কয়েকজন গ্রাম পুলিশ।  তাদের কান্না দেখে ওসি মামুনও চোখের পানি ধরে রাখতে পারেনি। এযেন এক হৃদয়বিদারক পরিস্থিতি।

ওসি মামুন ভালুকা থানায় প্রায় ৩ বছর কর্মরত ছিলেন। তার দায়িত্ব পালনকালে মাদক, সন্ত্রাস, ছিনতাইসহ অপরাধ দমনের একাধিক সফলতার প্রমান রেখেছেন।
তিনি ময়মনসিংহের শিল্প এলাকা ভালুকায় শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলোতে নিরাপত্তা নিশ্চিত করে ব্যবসার জন্য নিরাপদ জোন করে তুলেছেন। চাঁদাবাজ সন্ত্রাস সেখানে দাঁড়াতে পারেনি।
তিনি ঢাকা ময়মনসিংহ রোডের  আতংক রোড ডাকাত চক্রকে হটিয়ে পুলিশী আদিপত্য কায়েম করতে সক্ষম হয়েছেন। উপজেলার মাদক সম্রাটদের একের পর এক গ্রেফতার ও মামলা দিয়ে জারী করেছিলেন মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশী জিরো টলারেন্স। যা সর্ব মহলে জেলা পুলিশকে দিয়েছিল সফল পুলিশের খেতাব।

ওসি মামুন জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলামের নিবিড় নির্দেশনায় ভলুকা শিল্প এলাকায় সফল অভিযান চালিয়ে
নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মোজাহেদীন বাংলাদেশের জেএমবির সক্রিয় সদস্যের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছিলেন।
সেই সাথে অস্ত্র ও বোমা তৈরির বিপুল পরিমান সরঞ্জাম জব্দ করেছিলেন তিনি। উপজেলায় বিভিন্ন হত্যা মামলার মূলহোতাসহ একাদিক চিহৃিত আসামিদেরও তিনি গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে সমর্থ হয়েছিলেন।

ওসি মামুন জেলার সাবেক পুলিশ সুপার মঈনুল হক ও বর্তমান পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম এর কাছ থেকে জেলায় ১২ বার শ্রেষ্ঠ ওসির পুরস্কার নিয়েছেন। রেঞ্জ পর্যায়ে তিনি শ্রেষ্ঠ ওসি হয়েছেন ৪ বার।
আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিষ্ঠা, সততা, বিশ্বস্ততা,  অসীম সাহসিকতা, মাদক, জঙ্গি, ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ নির্মূলে তিনি প্রধান মন্ত্রীর কাছ থেকে পিপিএম পদকও লাভ করেন।

তিনি জরার্জিন ভালুকা থানায়  দায়িত্ব গ্রহন করেই জেলায় দৃষ্টিনন্দন মডেল থানা করে তোলেন থানা কম্পাউন্ডকে। এখন এই থানাতে রং চুনের কাজ ব্যতীত অন্য কোন কাজ আগামী ৩০ বছর করতে হবেনা বলেও এলাকাবাসী মত প্রকাশ করেন। জেলা পুলিশের নির্দেশে তিনি সার্বক্ষণিক ছিলেন কর্তব্যপরায়ণ।
তিনি পুলিশি দায়িত্বের পাশাপাশি সামাজিক উন্নয়নমূলক কাজও করেছেন। গরীব, দুঃখী, অসহায়, পঙ্গু, বিধবাদের কেও বিভিন্নভাবে আর্থিক সহযোগীতা করেছেন তিনি।
ওসি মামুন শত ব্যস্ততার মাঝেও সকলের সঙ্গে হাসিখুশি ব্যবহার করেছেন। রাজনৈতিক, সুশীল সমাজ সকলের সঙ্গে ছিলো তার সুসস্পর্ক। ওসি মামুনের সঙ্গে সাংবাদিকদের সম্পর্ক  ছিলো বন্ধুত্বপূর্ন ।

খেলাধুলাতেও তিনি ছিলেন  পারদর্শী। ঈদ এবং পূজাতে চৌকিদার, দফাদারকে বিশেষ সামগ্রী প্রদান করতেন। সেই সাথে ফকির, ভিক্ষুকদের কেও খালি হাতে ফেরাতেন না। তার এই বিদায় লগ্নে সহকর্মী, এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, ভালুকাবাসীর অনেক মানুষ ধরে রাখতে পারেনি চোখের পানি।

বাংলাদেশ পুলিশের গর্ব ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মামুন অর রশিদ পিপিএম বিদায় লগ্নে বলেন, ভালুকাবাসী হয়তো একদিন আমায় ভুলে যাবে। কিন্তুু আমি ভুলবো না। ভালোলাগা আর ভালবাসার এই বন্ধন আমি সারাজীবন মরে রাখবো।

তিনি আরও বলেন, ভালুকা মডেল থানায় আমার সফলতার পিছনে অন্নতম ভূমিকা রয়েছে গ্রাম পুলিশদের।

Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন : Share on Facebook
Facebook
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» ময়মনসিংহ মহানগর ছাত্রলীগ নেতা রাহাতের উদ্যোগে দিনব্যাপী খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

» ময়মনসিংহে ৪ জঙ্গি গ্রেফতার, জিহাদী বইসহ সরঞ্জাম উদ্ধার

» ময়মনসিংহ মহিলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে জীবানুনাশক সামগ্রী বিতরণ

» নিজ এলাকার একশত অসহায় পরিবারকে খাদ্যসহায়তার ঘোষনা দিলেন আসাদুজ্জামান রুমেল

» এবার মাইক হাতে নিজেই মাঠে নেমেছেন ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার

» ময়মনসিংহ পুলিশের পক্ষ থেকে খাদ্যসামগ্রী ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ

» ময়মনসিংহে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করতে মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী

» নিভৃতে দরিদ্রদের মাঝে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করলো ময়মনসিংহ ছাত্রলীগ নেতা তারিন

» নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় হাত ধোঁয়ার ব্যবস্থা করলে পানি বিল ৫০% মওকুফ;মেয়র টিটু

» নিত্যপণ্যের হোম ডেলিভারি সেবা নিয়ে “স্বপ্নছোঁয়া”এখন ময়মনসিংহে

» করোনা প্রতিরোধে ময়মনসিংহ জেলা পুলিশের গণসচেতনতামূলক ভিডিও বার্তা

» ময়মনসিংহে দ্রব্যমূল্যের বাজার নিয়ন্ত্রনে মোবাইল কোর্ট; ৩৩ হাজার টাকা জরিমানা

» ময়মনসিংহের পার্কসহ সকল ধরনের জনসমাগম নিষিদ্ধ ঘোষনা

» বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে প্রতিবন্ধী শিশুদের নিয়ে মধ্যাহ্নভোজ করলেন ময়মনসিংহ পুনাক সভানেত্রী

» পরিচ্ছন্নতায় মেয়রের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের চ্যালেঞ্জ নিয়েছে বর্জ ব্যবস্থাপনা বিভাগ

আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com

,

basic-bank

ভালুকা থানার ওসি মামুনের সফলতা এখানেই-বিদায় বেলায় কাঁদালেন সকলকে

বিল্লাল হোসেন প্রান্ত:

ময়মনসিংহ  জেলার ভালুকা মডেল থানার পুলিশ ইন্সপেক্টর ও সফল ওসি মামুন-অর-রশিদ পিপিএম বদলি জনিত কারনে চলে গেলেন। বিদায় বেলা থানায় কর্মরত সকল সদস্য এমনকি গ্রাম পুলিশের সদস্যদেরও কাঁদিয়ে গেলেন তিনি।
এই বিদায়ে  উপজেলার সাধারন অসহায় হতদরিদ্র মানুষগুলোও অশ্রুশিক্ত হয়ে ওসি মামুনকে বিদায় জানান। এখানেই একজন সফল পুলিশ কর্মকর্তার পরিচয় পাওয়া যায়।

বৃহস্পতিবার (৩ মে ) দুপুরে ভালুকা মডেল থানার সভাকক্ষে গ্রাম পুলিশের উদ্যোগে বিদায় সংবর্ধণার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে মামুন-অর-রশিদকে বিদায় দেওয়ার সময় আবেগ আপ্লুত হয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন কয়েকজন গ্রাম পুলিশ।  তাদের কান্না দেখে ওসি মামুনও চোখের পানি ধরে রাখতে পারেনি। এযেন এক হৃদয়বিদারক পরিস্থিতি।

ওসি মামুন ভালুকা থানায় প্রায় ৩ বছর কর্মরত ছিলেন। তার দায়িত্ব পালনকালে মাদক, সন্ত্রাস, ছিনতাইসহ অপরাধ দমনের একাধিক সফলতার প্রমান রেখেছেন।
তিনি ময়মনসিংহের শিল্প এলাকা ভালুকায় শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলোতে নিরাপত্তা নিশ্চিত করে ব্যবসার জন্য নিরাপদ জোন করে তুলেছেন। চাঁদাবাজ সন্ত্রাস সেখানে দাঁড়াতে পারেনি।
তিনি ঢাকা ময়মনসিংহ রোডের  আতংক রোড ডাকাত চক্রকে হটিয়ে পুলিশী আদিপত্য কায়েম করতে সক্ষম হয়েছেন। উপজেলার মাদক সম্রাটদের একের পর এক গ্রেফতার ও মামলা দিয়ে জারী করেছিলেন মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশী জিরো টলারেন্স। যা সর্ব মহলে জেলা পুলিশকে দিয়েছিল সফল পুলিশের খেতাব।

ওসি মামুন জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলামের নিবিড় নির্দেশনায় ভলুকা শিল্প এলাকায় সফল অভিযান চালিয়ে
নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামায়াতুল মোজাহেদীন বাংলাদেশের জেএমবির সক্রিয় সদস্যের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছিলেন।
সেই সাথে অস্ত্র ও বোমা তৈরির বিপুল পরিমান সরঞ্জাম জব্দ করেছিলেন তিনি। উপজেলায় বিভিন্ন হত্যা মামলার মূলহোতাসহ একাদিক চিহৃিত আসামিদেরও তিনি গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে সমর্থ হয়েছিলেন।

ওসি মামুন জেলার সাবেক পুলিশ সুপার মঈনুল হক ও বর্তমান পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম এর কাছ থেকে জেলায় ১২ বার শ্রেষ্ঠ ওসির পুরস্কার নিয়েছেন। রেঞ্জ পর্যায়ে তিনি শ্রেষ্ঠ ওসি হয়েছেন ৪ বার।
আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় নিষ্ঠা, সততা, বিশ্বস্ততা,  অসীম সাহসিকতা, মাদক, জঙ্গি, ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ নির্মূলে তিনি প্রধান মন্ত্রীর কাছ থেকে পিপিএম পদকও লাভ করেন।

তিনি জরার্জিন ভালুকা থানায়  দায়িত্ব গ্রহন করেই জেলায় দৃষ্টিনন্দন মডেল থানা করে তোলেন থানা কম্পাউন্ডকে। এখন এই থানাতে রং চুনের কাজ ব্যতীত অন্য কোন কাজ আগামী ৩০ বছর করতে হবেনা বলেও এলাকাবাসী মত প্রকাশ করেন। জেলা পুলিশের নির্দেশে তিনি সার্বক্ষণিক ছিলেন কর্তব্যপরায়ণ।
তিনি পুলিশি দায়িত্বের পাশাপাশি সামাজিক উন্নয়নমূলক কাজও করেছেন। গরীব, দুঃখী, অসহায়, পঙ্গু, বিধবাদের কেও বিভিন্নভাবে আর্থিক সহযোগীতা করেছেন তিনি।
ওসি মামুন শত ব্যস্ততার মাঝেও সকলের সঙ্গে হাসিখুশি ব্যবহার করেছেন। রাজনৈতিক, সুশীল সমাজ সকলের সঙ্গে ছিলো তার সুসস্পর্ক। ওসি মামুনের সঙ্গে সাংবাদিকদের সম্পর্ক  ছিলো বন্ধুত্বপূর্ন ।

খেলাধুলাতেও তিনি ছিলেন  পারদর্শী। ঈদ এবং পূজাতে চৌকিদার, দফাদারকে বিশেষ সামগ্রী প্রদান করতেন। সেই সাথে ফকির, ভিক্ষুকদের কেও খালি হাতে ফেরাতেন না। তার এই বিদায় লগ্নে সহকর্মী, এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, ভালুকাবাসীর অনেক মানুষ ধরে রাখতে পারেনি চোখের পানি।

বাংলাদেশ পুলিশের গর্ব ভালুকা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মামুন অর রশিদ পিপিএম বিদায় লগ্নে বলেন, ভালুকাবাসী হয়তো একদিন আমায় ভুলে যাবে। কিন্তুু আমি ভুলবো না। ভালোলাগা আর ভালবাসার এই বন্ধন আমি সারাজীবন মরে রাখবো।

তিনি আরও বলেন, ভালুকা মডেল থানায় আমার সফলতার পিছনে অন্নতম ভূমিকা রয়েছে গ্রাম পুলিশদের।

Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন : Share on Facebook
Facebook
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin

সর্বশেষ খবর



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com