দুপুর ১:২৫ | সোমবার | ২১শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং | ৬ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ময়মনসিংহ বিভাগে ২৩৬ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল

জনমত ডেক্স :

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য ময়মনসিংহ বিভাগের চার জেলায় আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মোট ২৩৬ জন প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

বুধবার (২৮ নভেম্বর) দিনব্যাপী ময়মনসিংহ, জামালপুর, নেত্রকোনা ও শেরপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জেলা রিটার্নিং ও উপজেলা পরিষদে সহকারী রিটার্নিং অফিসারের কাছে এসব মনোনয়নপত্র জমা দেন।

ময়মনসিংহ-১ (হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া) আসন থেকে বিভিন্ন দলের ১১ জন, ময়মনসিংহ-২ (ফুলপুর-তারাকান্দা) থেকে ৮ জন, ময়মনসিংহ-৩ (গৌরীপুর) থেকে ১৭ জন, ময়মনসিংহ-৪ (সদর) থেকে ১২ জন, ময়মনসিংহ-৫ (মুক্তাগাছা) থেকে ১৩ জন, ময়মনসিংহ-৬ (ফুলবাড়ীয়া) থেকে ৯ জন, ময়মনসিংহ-৭ (ত্রিশাল) থেকে ৯ জন, ময়মনসিংহ-৮ (ঈশ্বরগঞ্জ) থেকে ১২ জন, ময়মনসিংহ-৯ (নান্দাইল) থেকে ১২ জন, ময়মনসিংহ-১০ (গফরগাঁও) থেকে ১১ জন এবং ময়মনসিংহ-১১ (ভালুকা) আসন থেকে ৬ জন রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

যেসব আসন থেকে যে যে দলের কিংবা বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী যারা:

ময়মনসিংহ-৪ (সদর) ও ৭ (ত্রিশাল) আসনে জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান বেগম রওশন এরশাদ, ময়মনসিংহ-৪ (সদর) আসনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও ড্যাব সভাপতি ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, ময়মনসিংহ-৭ (ত্রিশাল) আসনে জাকের পার্টির কেন্দ্রীয় সভাপতি মোস্তফা আমীর ফয়সল মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

আসনভিত্তিক মনোনয়নপত্র দাখিলকারীরা হলেন, ময়মনসিংহ-১ (হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া) : জুয়েল আরেং (আ.লীগ), অ্যাডভোকেট আফজাল এইচ খান (বিএনপি), সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স (বিএনপি), আলী আসগর (বিএনপি) ও সালমান ওমর রুবেল (বিএনপি), হুমায়ুন মো. আব্দুল্লাহ আল হাদী (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), বাবুল দেবনাথ ও আব্দুস সালাম (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ)।

ময়মনসিংহ-২ (ফুলপুর-তারাকান্দা) : শরীফ আহমেদ (আ.লীগ), শাহ শহীদ সারোয়ার (বিএনপি) ও অ্যাডভোকেট আবুল বাশার আকন্দ (বিএনপি), মুফতি গোলাম মওলা ভূইয়া (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ) ও অ্যাডভোকেট মো. নজরুল ইসলাম (নাগরিক ঐক্য) ও মাওলানা তৈয়বুর রহমান (ইসলামী ঐক্যজোট)।

ময়মনসিংহ-৩ (গৌরীপুর) : নাজিম উদ্দিন আহামেদ (আ.লীগ), ডা. মতিউর রহমান (আ.লীগ বিদ্রোহী), এ কে এম আব্দুর রফিক (আ.লীগ বিদ্রোহী), আলী আহম্মদ খান পাঠান সেলভী (আ.লীগ বিদ্রোহী), নাজনীন আলম (আ.লীগ বিদ্রোহী), শরীফ হাসান অনু (আ.লীগ বিদ্রোহী), ড. সামিউল আলম লিটন (আ.লীগ বিদ্রোহী), মোর্শেদুজ্জামান সেলিম (আ.লীগ বিদ্রোহী), ইঞ্জিনিয়ার এম ইকবাল হোসেইন (বিএনপি), আহাম্মদ তায়েবুর রহমান হিরণ (বিএনপি) ও ডা. মো. আবদুস সেলিম (বিএনপি), হার্বন আল বারী (সিপিবি), আব্দুল মতিন মাস্টার (ন্যাপ), আইয়ুব আলী (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), গোলাম মোহাম্মদ (জাকের পার্টি) ও প্রাণেশ পন্ডিত (তরিকত ফেডারেশন)।

ময়মনসিংহ-৪ (সদর): বেগম রওশন এরশাদ (জাতীয় পার্টি), ডা. আবু জাফর মো. জাহিদ হোসেন (বিএনপি), দেলোয়ার হোসেন খান দুলু (বিএনপি), মো. আবু ওয়াহাব আকন্দ ওয়াহিদ (বিএনপি) ও অ্যাডভোকেট এমদাদুল হক মিল্লাত (সিপিবি), মো. হামিদুল ইসলাম (ন্যাশনাল পিপলস পাটি-এনপিপি) ও আবু সায়িদ মহিউদ্দিন আহমদ (ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালাইন্স-এনডিএ)।এছাড়া এই আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ড্রাস্ট্রির সভাপতি এবং এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক আমিনুল হক শামীম।

ময়মনসিংহ-৫ (মুক্তাগাছা) : কে এম খালিদ বাবু (আ.লীগ), সালাহউদ্দিন আহামেদ মুক্তি (জাতীয় পার্টি), মোহাম্মদ জাকির হোসেন বাবলু (বিএনপি), জাকির হোসেন বাবুল (ওয়াকার্স পার্টি-মেনন), জহিরুল ইসলাম (জাকের পার্টি), হাকিম মঞ্জুরুল হক (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), মুফতি হাবিবুর রহমান (খেলাফত মজলিস), সামান মিয়া (ন্যাশনাল পিপলস পার্টি-এনপিপি), শাহিনুল আলম ও সোহেল মিয়া (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ), মোস্তফা কামাল (স্বতন্ত্র)।

ময়মনসিংহ-৬ (ফুলবাড়ীয়া) : অ্যাডভোকেট মোসলেম উদ্দিন (আ.লীগ), ইঞ্জিনিয়ার শামসুদ্দিন আহমদ (বিএনপি) ও মো. আকতারুল আলম ফারুক (বিএনপি), অধ্যাপক জসিম উদ্দিন (জামায়াত-স্বতন্ত্র), খন্দকার রফিকুল ইসলাম (জাতীয় পার্টি), শফিকুল ইসলাম মিন্টু (জাসদ-ইনু), মো.নুরুল আলম সিদ্দিকী (ইসালমী আন্দোলন বাংলাদেশ), মো. বিল্লাল হোসেন (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ)।

ময়মনসিংহ-৭ (ত্রিশাল) : বেগম রওশন এরশাদ (জাতীয় পার্টি), হাফেজ রুহুল আমিন মাদানী (আ.লীগ), ডা. মাহবুবুর রহমান লিটন (বিএনপি), জয়নাল আবেদীন (বিএনপি) ও আমিন সরকার (বিএনপি), মাওলানা আজিজুল হক (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), মোস্তফা আমীর ফয়সল (জাকের পার্টি) ও আব্দুর রাজ্জাক রাজ (স্বতন্ত্র)।

ময়মনসিংহ-৮ (ঈশ্বরগঞ্জ) : ফখরুল ইমাম (জাতীয় পার্টি), সৌমেন্দ্র কিশোর রায় চৌধুরী (আ.লীগ বিদ্রোহী), শাহ নুরুল কবির শাহীন (বিএনপি) ও লুৎফুল্লাহেল মাজেদ বাবু (বিএনপি), রুহুল আমিন মাস্টার (বিএনপি-বিদ্রোহী), মাহমুদ হাসান সুমন (আ.লীগ বিদ্রোহী), অ্যাডভোকেট এ এইচ এম খালেকুজ্জামান (গণফোরাম), সাইফুদ্দিন আহাম্মেদ মনি (ডেমোক্রেটিক লীগ), মোহাম্মদ হাবিবুল্লাহ (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), খিজির হায়াত খান (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ) ও আবুল বাসার (লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি)।

ময়মনসিংহ-৯ (নান্দাইল) : আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিন (আ.লীগ), মেজর জেনারেল অব: আব্দুস সালাম (আ.লীগ বিদ্রোহী), খুররম খান চৌধুরী (বিএনপি) ও মো. ইয়াসের খান চৌধুরী (বিএনপি), অ্যাডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহামেদ (জাসদ-ইনু), মুফতি সাইদুর রহমান (ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন), মোঃ আলমগীর কবির উজ্জ্বল খান (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ), শফিকুল আলম (জাকের পার্টি), লতিফুল বারী হামিম (গণফোরাম), মোঃ আব্দুল কাদির (স্বতন্ত্র) ও মোঃ শহিদুলৱাহ (স্বতন্ত্র)।

ময়মনসিংহ-১০ (গফরগাঁও) : ফাহমি গোলন্দাজ বাবেল (আ.লীগ), মো. ওবায়দুল্লাহ আনোয়ার বুলবুল (আ.লীগ বিদ্রোহী), এ বি সিদ্দিকুর রহমান (বিএনপি) ও আকতারুজ্জামান বাচ্চু (বিএনপি), ক্বারী হাবিবুল্লাহ বেলালী (জাতীয় পার্টি), মজিবর রহমান (জাতীয় পার্টি), এস এম মোরশেদ (লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি), দ্বীন ইসলাম (গণফ্রন্ট), নুরুদ্দিন (ন্যাশনাল পিপলস পার্টি-এনপিপি) ও মাওলানা জয়নাল আবেদিন (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ)।

ময়মনসিংহ-১১ (ভালুকা) : কাজিম উদ্দিন আহামেদ ধনু (আ.লীগ), ফখরুদ্দিন আহমদ বাচ্চু (বিএনপি), অ্যাডভোকেট আনোয়ার আজিজ টুটুল (বিএনপি) ও মোর্শেদ আলম (বিএনপি), অ্যাডভোকেট আমানউল্লাহ সরকার (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ) ও নাজমা আক্তার (জাকের পার্টি)।

জামালপুরে ৫টি আসনে মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন ৫২ জন।

আওয়ামী লীগ থেকে ৮ জন, বিএনপি থেকে থেকে ১১ জন, জাতীয় পার্টি (এরশাদ) থেকে ৬ জন, জাতীয় পার্টি (জাপা) থেকে ২ জন, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি থেকে ১ জন, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) থেকে ৩ জন, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ) থেকে ১ জন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) থেকে ১ জন, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) থেকে ১ জন, গণফোরাম থেকে ৩ জন, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট পার্টি থেকে ২ জন, জাকের পার্টি থেকে ২ জন, ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ থেকে ৫ জন, খেলাফত আন্দোলন থেকে ১ জন, বাংলাদেশ শরিয়া আন্দোলন থেকে ১ জন, বাংলাদেশ মুসলিম লিগ থেকে ১ জন, পিপুলস পার্টি থেকে ১ জন এবং স্বতন্ত্র থেকে ১ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন দাখিল করেছেন।

জামালপুর-১(দেওয়ানগঞ্জ-বকশীগঞ্জ) : সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ (আ.লীগ), নূর মোহাম্মদ (আ.লীগ), সাবেক সংসদ সদস্য এম. রশিদুজ্জামান মিল্লাত (বিএনপি) এবং তার পুত্র মো. শাহাদৎ জামান (বিএনপি), সাবেক আইজিপি আব্দুল কাইয়ুম (বিএনপি), সাবেক মন্ত্রী এম এ সাত্তার (জাপা-এরশাদ), মো. সিরাজুল হক (গণফোরাম) মো. জাহাঙ্গীর আলম (বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি), মো. সুরুজ্জামান (ন্যাপ), মো. আব্দুল মজিদ (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ)।

জামালপুর-২ (ইসলামপুর) : সংসদ সদস্য মো. ফরিদুল হক খান দুলাল (আ.লীগ), সাবেক সংসদ সদস্য এ ই সুলতান মাহমুদ বাবু (বিএনপি), সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব এ এস এম আব্দুল হালিম (বিএনপি), মো. মনোয়ার হোসেন (বিএনপি), মোস্তফা আল মাহমুদ (জাপা-এরশাদ), মনজুরুল আহসান খান (সিপিবি), মুফতি মিনহাজ উদ্দিন (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ)।

জামালপুর-৩ (মেলান্দহ-মাদারগঞ্জ) : বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম (আ.লীগ), মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল (বিএনপি), ব্যারিস্টার এম বদরুদ্দোজা বাদল (বিএনপি), নঈম জাহাঙ্গীর (গণফোরাম), লে. কর্নেল (অব.) মো. মনজুর আহাদ হেলাল (জাপা-এরশাদ), শিবলুল বারী রাজু (সিপিবি), মো. শফিকুল ইসলাম (বাসদ), মো. আব্দুল হাকিম শান্তি (জাকের পার্টি), হাফেজ মাওলানা বোরহান উদ্দিন (ইসলামি আন্দোলন), মো. মাসুম বিল্লাহ (বাংলাদেশ শরিয়া আন্দোলন), আব্দুর রৌফ হীরা (পিপুলস পার্টি), মো. শফিকুর রহমান (স্বতন্ত্র)।

​জামালপুর-৪ (সরিষাবাড়ী) : সাবেক সংসদ সদস্য ডা. মুরাদ হাসান (আ.লীগ), মো. ফরিদুল কবির তালুকদার শামীম (বিএনপি), সংসদ সদস্য মো. মামুনুর রশিদ যোয়াদ্দার (জাপা-এরশাদ), মো. মুখলেছুর রহমান বস্ত (জাপা-এরশাদ), রবিউল আলম তরফদার (গণফোরাম), সাংবাদিক মোস্তফা বাবুল (বিএনফ), আলী আকবর (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ)।

জামালপুর-৫ (সদর) : সংসদ সদস্য মো. রেজাউল করিম হীরা (আ.লীগ), প্রকৌশলী মো. মোজাফফর হোসেন (আ.লীগ), ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ আলী (আ.লীগ বিদ্রোহী), সাবেক উপমন্ত্রী সিরাজুল হক (বিএনপি), আইনজীবী শাহ মো. ওয়ারেছ আলী মামুন (বিএনপি), কাজী মো. নজরুল ইসলাম (জাপা-এরশাদ), শেখ মো. আক্কাছ আলী (সিপিবি), অধ্যাপক আমীর উদ্দিন (জেএসডি), বাবর আলী খান (জাতীয় পার্টি-জেপি), আব্দুল করিম সরকার (বিএনএফ), সৈয়দ ইউনুছ আহাম্মেদ (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ), আল আমীন জুরহমান (বাংলাদেশ মুসলিম লিগ), মো. বেলাল উদ্দিন (খেলাফত আন্দোলন), মো. নজরুল ইসলাম আকন্দ (জাকের পার্টি)।

নেত্রকোনা জেলার ৫টি সংসদীয় আসনে মোট ৪৩ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল

নেত্রকোনা-১ (দুর্গাপুর-কলমাকান্দা) : আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মানু মজুমদার ও আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি মোসতাক আহমেদ রুহী, এরশাদুর রহমান মিন্টু, বিএনপির ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, গোলাম রব্বানী, এলডিপি’র এম এ করিম আব্বাসী, বাংলাদেশ খেলাফত মসলিসের আব্দুল কাইয়ুম খান, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের মো. নজরুল ইসলাম।

নেত্রকোনা-২ (সদর-বারহাট্টা): আওয়ামী লীগের আশরাফ আলী খান খসরু, বিএনপির আশরাফ উদ্দিন খান, ডা. আনোয়ারুল হক, এ টি এম আব্দুল বারী ড্যানি, আবু হায়দার মো. ইউসুফ, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মো. খোরশেদ আলী, জাকের পার্টির মোঃ বরকত উল্লাহ, বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়াকার্স পার্টির সজিব সরকার রতন, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির মোসতাক আহমেদ, জাতীয় পার্টির রহিমা আক্তার আসমা সুলতানা।

নেত্রকোনা-৩ (কেন্দুয়া-আটপাড়া): আওয়ামী লীগের অসীম কুমার উকিল, বিএনপির মো. রফিকুল ইসলাম হিলালী, দেলোয়ার হোসেন ভূঁইয়া দুলাল, জাতীয় পার্টির মো. জসিম উদ্দিন ভূঁইয়া, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মোঃ জাকির হোসেন, ইসলামী ঐক্যজোটের মো. এহ্তেশাম সরোয়ার।

নেত্রকোনা-৪ (মদন-মোহনগঞ্জ-খালিয়াজুরী) : আওয়ামী লীগের রেবেকা মমিন, বিএনপির বাবর পত্নী তাহমিনা জামান শ্রাবণী, কৃষিবিদ চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল ফারুক, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির জলি তালুকদার, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. মোফাজ্জল হোসেন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী শফী আহমেদ।

নেত্রকোনা-৫ (পূর্বধলা) : আওয়ামী লীগের প্রার্থী ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল (বীর প্রতিক), বিএনপির মো. আবু তাহের তালুকদার, রাবেয়া খাতুন ও এ এস এম শহিদুল্লাহ ইমরান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মো. শামীম হোসেন, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের মো. এম আর মাসুম, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের প্রার্থী আব্দুল ওয়াহাব হামিদী ও স্বতন্ত্র মো. জাকির হোসেন তালুকদার।

শেরপুর জেলার তিনটি আসনে ২২ প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল

প্রতি আসনে আ’লীগ এবং অন্যান্য দলের একজন করে প্রার্থী থাকলেও প্রতিটি আসনেই বিএনপির একাধিক প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। শেরপুর-১ (সদর) আসনে ৯ জন, শেরপুর-২ (নকলা-নালিতাবাড়ী) আসনে ৫ জন এবং শেরপুর-৩ (শ্রীবরদী-ঝিনাইগাতী) আসনে ৮ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

শেরপুর-১ (সদর) : জেলা আ’লীগ সভাপতি হুইপ মো. আতিউর রহমান আতিক (আ’লীগ), জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আলহাজ্ব মো. ইলিয়াছ উদ্দিন (জাতীয় পার্টি-এরশাদ), মো. জহির রায়হান (কৃষক-শ্রমিক-জনতা পার্টি), অ্যাডভোকেট মো. মতিউর রহমান (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ), মো. আফিল উদ্দিন (সিপিবি) এবং জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক মো. হযরত আলী (বিএনপি) ও তার মেয়ে সানসিলা জেবরিন প্রিয়াঙ্কা (বিএনপি), বিএনপি নেতা ফজলুল কাদের (বিএনপি), মো. শফিকুল ইসলাম মাসুদ (বিএনপি)।

শেরপুর-২ (নকলা-নালিতাবাড়ী) : আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী (আ’লীগ), নুরুল ইসলাম (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ), এবং বিএনপি’র তিন প্রার্থী বিএনপি’র জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য প্রকৌশলী ফাহিম চৌধুরী (বিএনপি), নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদের সদ্য পদত্যাগী চেয়ারম্যান এ.কে.এম মুখলেছুর রহমান রিপন (বিএনপি) ও বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ব্যরিস্টার এম. হায়দার আলী (বিএনপি)।

শেরপুর-৩ (শ্রীবরদী-ঝিনাইগাতী): সাবেক এমপি প্রকৌশলী এ.কে.এম ফজলুল হক চাঁন (আ’লীগ), জেলা বিএনপি’র সভাপতি সাবেক এমপি মাহমুদুল হক রুবেল (বিএনপি), মেজর (অব.) মাহমুদুল হাসান (বিএনপি), আবু নাসের (জাতীয় পার্টি-এরশাদ), সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মো. আব্দুস ছাত্তার (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ), আবু বকর সিদ্দিক (পিডিপি), সরোয়ার বাহাদুর লাল (স্বতন্ত্র) ও মো. ইন্তাজ আলী বিএসসি (স্বতন্ত্র)।

 

Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন : Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» *সেই রহস্যঘেরা ট্রলিব্যাগ থেকে মাথাবিহীন লাশ উদ্ধার*

» ময়মনসিংহে পরিত্যক্ত ট্রলিব্যাগ নিয়ে আতংক!

» গফরগাঁওয়ে ডিবি’র সাথে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত নিহত

» নিষিদ্ধ জঙ্গী টিমের ৫ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-১৪

» প্রধানমন্ত্রীর শুদ্ধি অভিযান অনুপ্রবেশকারী দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে- মোহিত উর রহমান শান্ত

» ময়মনসিংহে নারীর পেটের ভিতর থেকে ২ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার

» কিশোর গ্রুপ উন্মুক্ততায় শাওন হত্যাকান্ড; রহস্য উন্মোচন, গ্রেফতার ৭

» ময়মনসিংহে ছুড়িকাঘাতে কলেজ শিক্ষার্থী খুন

» গনতন্ত্রের গণমাধ্যম; দেশে গণমাধ্যম স্বাধীন নয় কি?

» ময়মনসিংহ ডিবি’র অভিযানে ১কেজি গাঁজ ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার ৪

» কাজল কুমার চন্দের বিরুদ্ধে প্রকাশিত মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদ

» ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

» দেশরত্ন শেখ হাসিনার ৭৩ তম জন্মদিনে মহানগর আঃ লীগের কেক কাটা দোয়া মাহফিল

» “দেখি কি বাল ফালাইতে” পারো, পুলিশ সদস্যকে বলা ডাঃ অনিকের ভিডিও ভাইরাল!

» ৭৪০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার ৭

আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com

,

basic-bank

ময়মনসিংহ বিভাগে ২৩৬ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল

জনমত ডেক্স :

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য ময়মনসিংহ বিভাগের চার জেলায় আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মোট ২৩৬ জন প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

বুধবার (২৮ নভেম্বর) দিনব্যাপী ময়মনসিংহ, জামালপুর, নেত্রকোনা ও শেরপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জেলা রিটার্নিং ও উপজেলা পরিষদে সহকারী রিটার্নিং অফিসারের কাছে এসব মনোনয়নপত্র জমা দেন।

ময়মনসিংহ-১ (হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া) আসন থেকে বিভিন্ন দলের ১১ জন, ময়মনসিংহ-২ (ফুলপুর-তারাকান্দা) থেকে ৮ জন, ময়মনসিংহ-৩ (গৌরীপুর) থেকে ১৭ জন, ময়মনসিংহ-৪ (সদর) থেকে ১২ জন, ময়মনসিংহ-৫ (মুক্তাগাছা) থেকে ১৩ জন, ময়মনসিংহ-৬ (ফুলবাড়ীয়া) থেকে ৯ জন, ময়মনসিংহ-৭ (ত্রিশাল) থেকে ৯ জন, ময়মনসিংহ-৮ (ঈশ্বরগঞ্জ) থেকে ১২ জন, ময়মনসিংহ-৯ (নান্দাইল) থেকে ১২ জন, ময়মনসিংহ-১০ (গফরগাঁও) থেকে ১১ জন এবং ময়মনসিংহ-১১ (ভালুকা) আসন থেকে ৬ জন রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

যেসব আসন থেকে যে যে দলের কিংবা বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী যারা:

ময়মনসিংহ-৪ (সদর) ও ৭ (ত্রিশাল) আসনে জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান বেগম রওশন এরশাদ, ময়মনসিংহ-৪ (সদর) আসনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও ড্যাব সভাপতি ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, ময়মনসিংহ-৭ (ত্রিশাল) আসনে জাকের পার্টির কেন্দ্রীয় সভাপতি মোস্তফা আমীর ফয়সল মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

আসনভিত্তিক মনোনয়নপত্র দাখিলকারীরা হলেন, ময়মনসিংহ-১ (হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া) : জুয়েল আরেং (আ.লীগ), অ্যাডভোকেট আফজাল এইচ খান (বিএনপি), সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স (বিএনপি), আলী আসগর (বিএনপি) ও সালমান ওমর রুবেল (বিএনপি), হুমায়ুন মো. আব্দুল্লাহ আল হাদী (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), বাবুল দেবনাথ ও আব্দুস সালাম (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ)।

ময়মনসিংহ-২ (ফুলপুর-তারাকান্দা) : শরীফ আহমেদ (আ.লীগ), শাহ শহীদ সারোয়ার (বিএনপি) ও অ্যাডভোকেট আবুল বাশার আকন্দ (বিএনপি), মুফতি গোলাম মওলা ভূইয়া (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ) ও অ্যাডভোকেট মো. নজরুল ইসলাম (নাগরিক ঐক্য) ও মাওলানা তৈয়বুর রহমান (ইসলামী ঐক্যজোট)।

ময়মনসিংহ-৩ (গৌরীপুর) : নাজিম উদ্দিন আহামেদ (আ.লীগ), ডা. মতিউর রহমান (আ.লীগ বিদ্রোহী), এ কে এম আব্দুর রফিক (আ.লীগ বিদ্রোহী), আলী আহম্মদ খান পাঠান সেলভী (আ.লীগ বিদ্রোহী), নাজনীন আলম (আ.লীগ বিদ্রোহী), শরীফ হাসান অনু (আ.লীগ বিদ্রোহী), ড. সামিউল আলম লিটন (আ.লীগ বিদ্রোহী), মোর্শেদুজ্জামান সেলিম (আ.লীগ বিদ্রোহী), ইঞ্জিনিয়ার এম ইকবাল হোসেইন (বিএনপি), আহাম্মদ তায়েবুর রহমান হিরণ (বিএনপি) ও ডা. মো. আবদুস সেলিম (বিএনপি), হার্বন আল বারী (সিপিবি), আব্দুল মতিন মাস্টার (ন্যাপ), আইয়ুব আলী (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), গোলাম মোহাম্মদ (জাকের পার্টি) ও প্রাণেশ পন্ডিত (তরিকত ফেডারেশন)।

ময়মনসিংহ-৪ (সদর): বেগম রওশন এরশাদ (জাতীয় পার্টি), ডা. আবু জাফর মো. জাহিদ হোসেন (বিএনপি), দেলোয়ার হোসেন খান দুলু (বিএনপি), মো. আবু ওয়াহাব আকন্দ ওয়াহিদ (বিএনপি) ও অ্যাডভোকেট এমদাদুল হক মিল্লাত (সিপিবি), মো. হামিদুল ইসলাম (ন্যাশনাল পিপলস পাটি-এনপিপি) ও আবু সায়িদ মহিউদ্দিন আহমদ (ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালাইন্স-এনডিএ)।এছাড়া এই আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ড্রাস্ট্রির সভাপতি এবং এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক আমিনুল হক শামীম।

ময়মনসিংহ-৫ (মুক্তাগাছা) : কে এম খালিদ বাবু (আ.লীগ), সালাহউদ্দিন আহামেদ মুক্তি (জাতীয় পার্টি), মোহাম্মদ জাকির হোসেন বাবলু (বিএনপি), জাকির হোসেন বাবুল (ওয়াকার্স পার্টি-মেনন), জহিরুল ইসলাম (জাকের পার্টি), হাকিম মঞ্জুরুল হক (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), মুফতি হাবিবুর রহমান (খেলাফত মজলিস), সামান মিয়া (ন্যাশনাল পিপলস পার্টি-এনপিপি), শাহিনুল আলম ও সোহেল মিয়া (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ), মোস্তফা কামাল (স্বতন্ত্র)।

ময়মনসিংহ-৬ (ফুলবাড়ীয়া) : অ্যাডভোকেট মোসলেম উদ্দিন (আ.লীগ), ইঞ্জিনিয়ার শামসুদ্দিন আহমদ (বিএনপি) ও মো. আকতারুল আলম ফারুক (বিএনপি), অধ্যাপক জসিম উদ্দিন (জামায়াত-স্বতন্ত্র), খন্দকার রফিকুল ইসলাম (জাতীয় পার্টি), শফিকুল ইসলাম মিন্টু (জাসদ-ইনু), মো.নুরুল আলম সিদ্দিকী (ইসালমী আন্দোলন বাংলাদেশ), মো. বিল্লাল হোসেন (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ)।

ময়মনসিংহ-৭ (ত্রিশাল) : বেগম রওশন এরশাদ (জাতীয় পার্টি), হাফেজ রুহুল আমিন মাদানী (আ.লীগ), ডা. মাহবুবুর রহমান লিটন (বিএনপি), জয়নাল আবেদীন (বিএনপি) ও আমিন সরকার (বিএনপি), মাওলানা আজিজুল হক (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), মোস্তফা আমীর ফয়সল (জাকের পার্টি) ও আব্দুর রাজ্জাক রাজ (স্বতন্ত্র)।

ময়মনসিংহ-৮ (ঈশ্বরগঞ্জ) : ফখরুল ইমাম (জাতীয় পার্টি), সৌমেন্দ্র কিশোর রায় চৌধুরী (আ.লীগ বিদ্রোহী), শাহ নুরুল কবির শাহীন (বিএনপি) ও লুৎফুল্লাহেল মাজেদ বাবু (বিএনপি), রুহুল আমিন মাস্টার (বিএনপি-বিদ্রোহী), মাহমুদ হাসান সুমন (আ.লীগ বিদ্রোহী), অ্যাডভোকেট এ এইচ এম খালেকুজ্জামান (গণফোরাম), সাইফুদ্দিন আহাম্মেদ মনি (ডেমোক্রেটিক লীগ), মোহাম্মদ হাবিবুল্লাহ (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), খিজির হায়াত খান (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ) ও আবুল বাসার (লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি)।

ময়মনসিংহ-৯ (নান্দাইল) : আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিন (আ.লীগ), মেজর জেনারেল অব: আব্দুস সালাম (আ.লীগ বিদ্রোহী), খুররম খান চৌধুরী (বিএনপি) ও মো. ইয়াসের খান চৌধুরী (বিএনপি), অ্যাডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহামেদ (জাসদ-ইনু), মুফতি সাইদুর রহমান (ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন), মোঃ আলমগীর কবির উজ্জ্বল খান (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ), শফিকুল আলম (জাকের পার্টি), লতিফুল বারী হামিম (গণফোরাম), মোঃ আব্দুল কাদির (স্বতন্ত্র) ও মোঃ শহিদুলৱাহ (স্বতন্ত্র)।

ময়মনসিংহ-১০ (গফরগাঁও) : ফাহমি গোলন্দাজ বাবেল (আ.লীগ), মো. ওবায়দুল্লাহ আনোয়ার বুলবুল (আ.লীগ বিদ্রোহী), এ বি সিদ্দিকুর রহমান (বিএনপি) ও আকতারুজ্জামান বাচ্চু (বিএনপি), ক্বারী হাবিবুল্লাহ বেলালী (জাতীয় পার্টি), মজিবর রহমান (জাতীয় পার্টি), এস এম মোরশেদ (লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি), দ্বীন ইসলাম (গণফ্রন্ট), নুরুদ্দিন (ন্যাশনাল পিপলস পার্টি-এনপিপি) ও মাওলানা জয়নাল আবেদিন (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ)।

ময়মনসিংহ-১১ (ভালুকা) : কাজিম উদ্দিন আহামেদ ধনু (আ.লীগ), ফখরুদ্দিন আহমদ বাচ্চু (বিএনপি), অ্যাডভোকেট আনোয়ার আজিজ টুটুল (বিএনপি) ও মোর্শেদ আলম (বিএনপি), অ্যাডভোকেট আমানউল্লাহ সরকার (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ) ও নাজমা আক্তার (জাকের পার্টি)।

জামালপুরে ৫টি আসনে মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন ৫২ জন।

আওয়ামী লীগ থেকে ৮ জন, বিএনপি থেকে থেকে ১১ জন, জাতীয় পার্টি (এরশাদ) থেকে ৬ জন, জাতীয় পার্টি (জাপা) থেকে ২ জন, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি থেকে ১ জন, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) থেকে ৩ জন, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ) থেকে ১ জন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) থেকে ১ জন, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) থেকে ১ জন, গণফোরাম থেকে ৩ জন, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট পার্টি থেকে ২ জন, জাকের পার্টি থেকে ২ জন, ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ থেকে ৫ জন, খেলাফত আন্দোলন থেকে ১ জন, বাংলাদেশ শরিয়া আন্দোলন থেকে ১ জন, বাংলাদেশ মুসলিম লিগ থেকে ১ জন, পিপুলস পার্টি থেকে ১ জন এবং স্বতন্ত্র থেকে ১ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন দাখিল করেছেন।

জামালপুর-১(দেওয়ানগঞ্জ-বকশীগঞ্জ) : সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ (আ.লীগ), নূর মোহাম্মদ (আ.লীগ), সাবেক সংসদ সদস্য এম. রশিদুজ্জামান মিল্লাত (বিএনপি) এবং তার পুত্র মো. শাহাদৎ জামান (বিএনপি), সাবেক আইজিপি আব্দুল কাইয়ুম (বিএনপি), সাবেক মন্ত্রী এম এ সাত্তার (জাপা-এরশাদ), মো. সিরাজুল হক (গণফোরাম) মো. জাহাঙ্গীর আলম (বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি), মো. সুরুজ্জামান (ন্যাপ), মো. আব্দুল মজিদ (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ)।

জামালপুর-২ (ইসলামপুর) : সংসদ সদস্য মো. ফরিদুল হক খান দুলাল (আ.লীগ), সাবেক সংসদ সদস্য এ ই সুলতান মাহমুদ বাবু (বিএনপি), সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব এ এস এম আব্দুল হালিম (বিএনপি), মো. মনোয়ার হোসেন (বিএনপি), মোস্তফা আল মাহমুদ (জাপা-এরশাদ), মনজুরুল আহসান খান (সিপিবি), মুফতি মিনহাজ উদ্দিন (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ)।

জামালপুর-৩ (মেলান্দহ-মাদারগঞ্জ) : বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম (আ.লীগ), মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল (বিএনপি), ব্যারিস্টার এম বদরুদ্দোজা বাদল (বিএনপি), নঈম জাহাঙ্গীর (গণফোরাম), লে. কর্নেল (অব.) মো. মনজুর আহাদ হেলাল (জাপা-এরশাদ), শিবলুল বারী রাজু (সিপিবি), মো. শফিকুল ইসলাম (বাসদ), মো. আব্দুল হাকিম শান্তি (জাকের পার্টি), হাফেজ মাওলানা বোরহান উদ্দিন (ইসলামি আন্দোলন), মো. মাসুম বিল্লাহ (বাংলাদেশ শরিয়া আন্দোলন), আব্দুর রৌফ হীরা (পিপুলস পার্টি), মো. শফিকুর রহমান (স্বতন্ত্র)।

​জামালপুর-৪ (সরিষাবাড়ী) : সাবেক সংসদ সদস্য ডা. মুরাদ হাসান (আ.লীগ), মো. ফরিদুল কবির তালুকদার শামীম (বিএনপি), সংসদ সদস্য মো. মামুনুর রশিদ যোয়াদ্দার (জাপা-এরশাদ), মো. মুখলেছুর রহমান বস্ত (জাপা-এরশাদ), রবিউল আলম তরফদার (গণফোরাম), সাংবাদিক মোস্তফা বাবুল (বিএনফ), আলী আকবর (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ)।

জামালপুর-৫ (সদর) : সংসদ সদস্য মো. রেজাউল করিম হীরা (আ.লীগ), প্রকৌশলী মো. মোজাফফর হোসেন (আ.লীগ), ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ আলী (আ.লীগ বিদ্রোহী), সাবেক উপমন্ত্রী সিরাজুল হক (বিএনপি), আইনজীবী শাহ মো. ওয়ারেছ আলী মামুন (বিএনপি), কাজী মো. নজরুল ইসলাম (জাপা-এরশাদ), শেখ মো. আক্কাছ আলী (সিপিবি), অধ্যাপক আমীর উদ্দিন (জেএসডি), বাবর আলী খান (জাতীয় পার্টি-জেপি), আব্দুল করিম সরকার (বিএনএফ), সৈয়দ ইউনুছ আহাম্মেদ (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ), আল আমীন জুরহমান (বাংলাদেশ মুসলিম লিগ), মো. বেলাল উদ্দিন (খেলাফত আন্দোলন), মো. নজরুল ইসলাম আকন্দ (জাকের পার্টি)।

নেত্রকোনা জেলার ৫টি সংসদীয় আসনে মোট ৪৩ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল

নেত্রকোনা-১ (দুর্গাপুর-কলমাকান্দা) : আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মানু মজুমদার ও আওয়ামী লীগের সাবেক এমপি মোসতাক আহমেদ রুহী, এরশাদুর রহমান মিন্টু, বিএনপির ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, গোলাম রব্বানী, এলডিপি’র এম এ করিম আব্বাসী, বাংলাদেশ খেলাফত মসলিসের আব্দুল কাইয়ুম খান, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের মো. নজরুল ইসলাম।

নেত্রকোনা-২ (সদর-বারহাট্টা): আওয়ামী লীগের আশরাফ আলী খান খসরু, বিএনপির আশরাফ উদ্দিন খান, ডা. আনোয়ারুল হক, এ টি এম আব্দুল বারী ড্যানি, আবু হায়দার মো. ইউসুফ, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মো. খোরশেদ আলী, জাকের পার্টির মোঃ বরকত উল্লাহ, বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়াকার্স পার্টির সজিব সরকার রতন, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির মোসতাক আহমেদ, জাতীয় পার্টির রহিমা আক্তার আসমা সুলতানা।

নেত্রকোনা-৩ (কেন্দুয়া-আটপাড়া): আওয়ামী লীগের অসীম কুমার উকিল, বিএনপির মো. রফিকুল ইসলাম হিলালী, দেলোয়ার হোসেন ভূঁইয়া দুলাল, জাতীয় পার্টির মো. জসিম উদ্দিন ভূঁইয়া, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মোঃ জাকির হোসেন, ইসলামী ঐক্যজোটের মো. এহ্তেশাম সরোয়ার।

নেত্রকোনা-৪ (মদন-মোহনগঞ্জ-খালিয়াজুরী) : আওয়ামী লীগের রেবেকা মমিন, বিএনপির বাবর পত্নী তাহমিনা জামান শ্রাবণী, কৃষিবিদ চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল ফারুক, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির জলি তালুকদার, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. মোফাজ্জল হোসেন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী শফী আহমেদ।

নেত্রকোনা-৫ (পূর্বধলা) : আওয়ামী লীগের প্রার্থী ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল (বীর প্রতিক), বিএনপির মো. আবু তাহের তালুকদার, রাবেয়া খাতুন ও এ এস এম শহিদুল্লাহ ইমরান, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ মো. শামীম হোসেন, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের মো. এম আর মাসুম, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের প্রার্থী আব্দুল ওয়াহাব হামিদী ও স্বতন্ত্র মো. জাকির হোসেন তালুকদার।

শেরপুর জেলার তিনটি আসনে ২২ প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল

প্রতি আসনে আ’লীগ এবং অন্যান্য দলের একজন করে প্রার্থী থাকলেও প্রতিটি আসনেই বিএনপির একাধিক প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। শেরপুর-১ (সদর) আসনে ৯ জন, শেরপুর-২ (নকলা-নালিতাবাড়ী) আসনে ৫ জন এবং শেরপুর-৩ (শ্রীবরদী-ঝিনাইগাতী) আসনে ৮ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

শেরপুর-১ (সদর) : জেলা আ’লীগ সভাপতি হুইপ মো. আতিউর রহমান আতিক (আ’লীগ), জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আলহাজ্ব মো. ইলিয়াছ উদ্দিন (জাতীয় পার্টি-এরশাদ), মো. জহির রায়হান (কৃষক-শ্রমিক-জনতা পার্টি), অ্যাডভোকেট মো. মতিউর রহমান (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ), মো. আফিল উদ্দিন (সিপিবি) এবং জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক মো. হযরত আলী (বিএনপি) ও তার মেয়ে সানসিলা জেবরিন প্রিয়াঙ্কা (বিএনপি), বিএনপি নেতা ফজলুল কাদের (বিএনপি), মো. শফিকুল ইসলাম মাসুদ (বিএনপি)।

শেরপুর-২ (নকলা-নালিতাবাড়ী) : আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী (আ’লীগ), নুরুল ইসলাম (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ), এবং বিএনপি’র তিন প্রার্থী বিএনপি’র জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য প্রকৌশলী ফাহিম চৌধুরী (বিএনপি), নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদের সদ্য পদত্যাগী চেয়ারম্যান এ.কে.এম মুখলেছুর রহমান রিপন (বিএনপি) ও বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ব্যরিস্টার এম. হায়দার আলী (বিএনপি)।

শেরপুর-৩ (শ্রীবরদী-ঝিনাইগাতী): সাবেক এমপি প্রকৌশলী এ.কে.এম ফজলুল হক চাঁন (আ’লীগ), জেলা বিএনপি’র সভাপতি সাবেক এমপি মাহমুদুল হক রুবেল (বিএনপি), মেজর (অব.) মাহমুদুল হাসান (বিএনপি), আবু নাসের (জাতীয় পার্টি-এরশাদ), সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মো. আব্দুস ছাত্তার (ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ), আবু বকর সিদ্দিক (পিডিপি), সরোয়ার বাহাদুর লাল (স্বতন্ত্র) ও মো. ইন্তাজ আলী বিএসসি (স্বতন্ত্র)।

 

Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন : Share on Facebook
Facebook
0Share on Google+
Google+
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin

সর্বশেষ খবর



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com