দুপুর ১২:২৭ | বুধবার | ২৮শে অক্টোবর, ২০২০ ইং | ১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ময়মনসিংহ থানাঘাট বধ্যভূমি সংস্কারে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের প্রশংসনিয় উদ্যেগ

বিল্লাল হোসেন প্রান্তঃ

১৯৭১ সালে পাক হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসররা নিরস্ত্র বাঙ্গালীদের ধরে এনে ফায়ারিং স্কোয়াডে হত্যা করে লাশ ফেলে রাখত। ময়মনসিংহ সদরে এমন মর্মান্তিক স্মৃতি বহন করছে থানাঘাট জেলা পরিষদ ডাকবাংলোর পিছনের বধ্যভূমিটি।

 

 

সরকার এটি সংরক্ষনের ব্যবস্থা করেন। ময়মনসিংহের বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক ধর্মমন্ত্রী থানাঘাটের বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধ স্থাপনার উদ্ভোধন করেন। তবে বর্তমানে এটি অবহেলায় পতিত হয়ে অপরিস্কার ও নানা অপকর্মের আশ্রয়স্থলে পরিনত হওয়ায় এটি পুনঃসংস্কার এর উদ্যেগ গ্রহন করেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ হাফিজুর রহমান

বৃহস্পতিবার ৭ মার্চ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার ভূমি মোঃ মহিনুল হাসান সরজমিনে বধ্যভূমি পরিদর্শন করেন। এসময় বধ্যভূমির চারপাশে বসবাসকারীদের সাথে কথা বলেন। এবং স্মৃতিসৌধটি সংস্কারে বাউন্ডারি ওয়াল ও দুটি গেইট নির্মানের নির্দেশ দেন। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন ৮ নং ওয়ার্ড সাবেক কাউন্সিল ফারুক হাসান, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড এর নেতৃবৃন্দ,জেলা যুবলীগ সদস্য পিন্টু সরকার।

 

 

সদর উপজেলা কর্মকর্তা বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধটি যথাযথ সংরক্ষন কল্পে এর আশপাশে বসবাসকারী সকলের সহযোগীতা কামনা করেন। তিনি সিটি করপোরেশন এর চলমান ব্রীজ মোড় থেকে থানাঘাট বাইপাস সড়ক নির্মানে কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেন। এবং ২৬ মার্চ এর পূর্বে বধ্যভূমির সামনের রাস্তাটা পাকাকরণের অনুরোধ জানান।

এদিকে একইসাথে থানাঘাট মন্দিরের সামনে দিয়ে চলমান বাইপাস সড়ক নির্মাণ কাজে বাধা প্রদানকারী অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান চালান জেলা প্রসাশনের এ দুই কর্মকর্তা। এসময় নির্মিয়মান সড়কের ওয়াকওয়ে রাস্তার পাশে ৭/৮ টি অবৈধ দোকান ভেঙে দেয়া হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন সিটি করপোরেশন ইঞ্জিনিয়ার আবুল কালাম আজাদসহ কর্মকর্তারা।

 

 

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার আকস্মিক এ অভিযানকে স্বাগত জানিয়েছেন স্থানীয় জনগণ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

একইদিন তিনি আকস্মিক পরিদর্শন করেন মা ও শিশু হাসপাতাল ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড ভবণ। কথা বলেন মা ও শিশু হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের সাথে। খোঁজ খবর নেন হাসপাতাল ব্যবস্থাপনার।

Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন : Share on Facebook
Facebook
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» বর্ণাঢ্য আয়োজনে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

» শান্তর সৌজন্যে একাদশ শ্রেণীর দরিদ্র শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঠ্যপুস্তক সহায়তা

» গৌরীপুর স্বেচ্ছাসেবকলীগ সাধারণ সম্পাদককে কুপিয়ে হত্যা

» বোররচরে নৌকার জনসভায় জনসমুদ্র; শান্তর আগমনে নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ

» ময়মনসিংহে পারভেজ হত্যা রহস্য উন্মোচনসহ ৫ আসামি গ্রেফতার

» করোনা যোদ্ধাদের সম্মাননায় বিভাগীয় প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

» র‍্যাব-১৪ অভিযানে শিশু ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেফতার

» অনিয়ন্ত্রিত ময়মনসিংহ ছাত্রলীগ! দায় কাদের?

» প্রতিবন্ধী ও অসহায়দের মাঝে ময়মনসিংহ মহানগর যুবলীগের খাবার বিতরণ

» প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে জেলা যুবলীগের বৃক্ষ রোপণ ও খাবার বিতরণ

» ময়মনসিংহের কৃষ্টপুরে নিয়ম বহির্ভূত বিল্ডিংয়ে জনদুর্ভোগ

» ময়মনসিংহে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের প্রতিবাদ সমাবেশ, মানববন্ধন

» ছাত্রলীগের পদ প্রত্যাশায় ত্যাগী নেতাদের নিয়ে সমালোচনার প্রতিযোগীতা

» পরাণগঞ্জে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন প্রতিবাদ সমাবেশ

» কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের আগস্ট আলোচনা সভায় ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগ

আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com

,

basic-bank

ময়মনসিংহ থানাঘাট বধ্যভূমি সংস্কারে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের প্রশংসনিয় উদ্যেগ

বিল্লাল হোসেন প্রান্তঃ

১৯৭১ সালে পাক হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসররা নিরস্ত্র বাঙ্গালীদের ধরে এনে ফায়ারিং স্কোয়াডে হত্যা করে লাশ ফেলে রাখত। ময়মনসিংহ সদরে এমন মর্মান্তিক স্মৃতি বহন করছে থানাঘাট জেলা পরিষদ ডাকবাংলোর পিছনের বধ্যভূমিটি।

 

 

সরকার এটি সংরক্ষনের ব্যবস্থা করেন। ময়মনসিংহের বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক ধর্মমন্ত্রী থানাঘাটের বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধ স্থাপনার উদ্ভোধন করেন। তবে বর্তমানে এটি অবহেলায় পতিত হয়ে অপরিস্কার ও নানা অপকর্মের আশ্রয়স্থলে পরিনত হওয়ায় এটি পুনঃসংস্কার এর উদ্যেগ গ্রহন করেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ হাফিজুর রহমান

বৃহস্পতিবার ৭ মার্চ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার ভূমি মোঃ মহিনুল হাসান সরজমিনে বধ্যভূমি পরিদর্শন করেন। এসময় বধ্যভূমির চারপাশে বসবাসকারীদের সাথে কথা বলেন। এবং স্মৃতিসৌধটি সংস্কারে বাউন্ডারি ওয়াল ও দুটি গেইট নির্মানের নির্দেশ দেন। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন ৮ নং ওয়ার্ড সাবেক কাউন্সিল ফারুক হাসান, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড এর নেতৃবৃন্দ,জেলা যুবলীগ সদস্য পিন্টু সরকার।

 

 

সদর উপজেলা কর্মকর্তা বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধটি যথাযথ সংরক্ষন কল্পে এর আশপাশে বসবাসকারী সকলের সহযোগীতা কামনা করেন। তিনি সিটি করপোরেশন এর চলমান ব্রীজ মোড় থেকে থানাঘাট বাইপাস সড়ক নির্মানে কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেন। এবং ২৬ মার্চ এর পূর্বে বধ্যভূমির সামনের রাস্তাটা পাকাকরণের অনুরোধ জানান।

এদিকে একইসাথে থানাঘাট মন্দিরের সামনে দিয়ে চলমান বাইপাস সড়ক নির্মাণ কাজে বাধা প্রদানকারী অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান চালান জেলা প্রসাশনের এ দুই কর্মকর্তা। এসময় নির্মিয়মান সড়কের ওয়াকওয়ে রাস্তার পাশে ৭/৮ টি অবৈধ দোকান ভেঙে দেয়া হয়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন সিটি করপোরেশন ইঞ্জিনিয়ার আবুল কালাম আজাদসহ কর্মকর্তারা।

 

 

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার আকস্মিক এ অভিযানকে স্বাগত জানিয়েছেন স্থানীয় জনগণ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।

একইদিন তিনি আকস্মিক পরিদর্শন করেন মা ও শিশু হাসপাতাল ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড ভবণ। কথা বলেন মা ও শিশু হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের সাথে। খোঁজ খবর নেন হাসপাতাল ব্যবস্থাপনার।

Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন : Share on Facebook
Facebook
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin

সর্বশেষ খবর



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com