সকাল ৬:২৯ | সোমবার | ২৬শে অক্টোবর, ২০২০ ইং | ১০ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মুক্তাগাছায় ছাগল পেপে গাছ খাওয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের আঘাতে যুবক নিহত

বিল্লাল হোসেন প্রান্তঃ

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার পল্লী এলাকায় ছাগলে পেপে গাছ খাওয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের সাবালের আঘাতে সোহেল (৩৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। এতে আহত হয় আরও চারজন। আহতরা হলেন, মাওলানা ফয়জুর রহমান সুরুজ, দেলোয়ার হোসেন, শফিকুল ইসলাম,হাফিজুর রহমান।

 

 

এ ঘটনায় নিহত সোহেলের বড় ভাই মাওলানা ফয়জুর রহমান সুরুজ বাদি হয়ে মুক্তাগাছা থানায় আঃ সামাদ বাদলকে প্রধান আসামিসহ ৫ জনের নাম উল্লেখ পূর্বক ৪/৫ অজ্ঞাত আসামি করে মামলা দায়ের করেন। আসামিরা হলেন, মকবুল হোসেন, তার তিন ছেলে আব্দুস সামাদ বাদল, মাসুদ ও বাবুল, হোসনে আরা স্বামী আব্দুস সামাদ বাদল।

 

 

রবিবার (২৮ জুন) দুপুরে পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এর আগে শনিবার বিকেলে উপজেলার খেরুয়াজানি ইউনিয়নের ঘরবাজাইল গ্রামে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। গ্রামটিতে আতংকাবস্থা বিরাজ করছে। হত্যাকান্ডের পর থেকেই আসামিরা বাড়িঘর ছেলে পলাতক বলে গ্রামবাসী জানায়।

 

 

নিহতের স্বজনরা অভিযোগ করে বলেন, গত শুক্রবার প্রতিবেশী বাদলের একটি পেঁপে গাছ খায় সোহেলের ছাগল। পরে ওই ছাগলেকে বাদলের স্ত্রী খোয়ারে দিয়ে আসে। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। শুক্রবারের কথা কাটাকাটির জেরে শনিবার পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়ে সোহেলসহ তার পরিবারের ৫ জনকে দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে আহত করে। পরেরদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোহেল মৃত্যু বরণ করে।

প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে ফিরে আসা নিহত সোহেলের বড় ভাই মাওলানা ফয়জুর রহমান সুরুজ বলেন, বাদলের পরিবারটি এই গ্রামে সব সময়েই বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে থাকে। তুচ্ছ একটি ঘটনাকে নিয়ে আজ আমার ভাইকে তারা খুন করে ফেলেছে।

 

 

তিনি এ হত্যাকান্ডের তদন্তপূর্ক সঠিক বিচার দাবি করে বলেন, বাদল ও তার স্ত্রী শুক্রবার বাকবিতন্ডার সময়ই সোহেলকে হত্যার হুমকি দেয়। এ ঘটনায় শনিবার দুপুরে সোহেল মুক্তাগাছা থানায় জিডি করতে বাড়ি থেকে বের হলে রাস্তায় বাদল,তার স্ত্রীসহ লোকজন অতর্কিত হামলা চালায়। সোহেলের মাথায় সাবাল দিয়ে আঘাত করে তাকে গুরতর আহত করে। পরে তার মৃত্যু হয়।

 

 

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী মোঃ কাউসার আলী বলেন, আমি ঘাস কাটছিলাম দেখলাম কিছু লোক সাবাল, কোচ, রামদা নিয়ে সোহেলসহ তার ভাইকে মারছে। আমি আসতে আসতে সোহেল মাটিতে পড়ে গেল। তার শরীর দিয়ে রক্ত পড়ছে। এসময় আমি বাদল ও সোহেলের ভাইদের দুই দিকে সড়িয়ে দেই। পরে এলাকাবাসীদের সহায়তায় সোহেলসহ আহতদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোহেলের মৃত্যু হয়।

 

 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মুক্তাগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ বিপ্লব কুমার বিশ্বাস বলেন, ছাগল পেঁপে গাছ খেয়েছে এমন ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঝগড়া হয়। এনিয়ে মারামারির এক পর্যায়ে একজন খুন হয়েছে। এঘটনায় মামলা হয়েছে। মামলার আসামি বাদলের পিতা মকবুল হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানান ওসি।

Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন : Share on Facebook
Facebook
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» শান্তর সৌজন্যে একাদশ শ্রেণীর দরিদ্র শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঠ্যপুস্তক সহায়তা

» গৌরীপুর স্বেচ্ছাসেবকলীগ সাধারণ সম্পাদককে কুপিয়ে হত্যা

» বোররচরে নৌকার জনসভায় জনসমুদ্র; শান্তর আগমনে নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ

» ময়মনসিংহে পারভেজ হত্যা রহস্য উন্মোচনসহ ৫ আসামি গ্রেফতার

» করোনা যোদ্ধাদের সম্মাননায় বিভাগীয় প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

» র‍্যাব-১৪ অভিযানে শিশু ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেফতার

» অনিয়ন্ত্রিত ময়মনসিংহ ছাত্রলীগ! দায় কাদের?

» প্রতিবন্ধী ও অসহায়দের মাঝে ময়মনসিংহ মহানগর যুবলীগের খাবার বিতরণ

» প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে জেলা যুবলীগের বৃক্ষ রোপণ ও খাবার বিতরণ

» ময়মনসিংহের কৃষ্টপুরে নিয়ম বহির্ভূত বিল্ডিংয়ে জনদুর্ভোগ

» ময়মনসিংহে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের প্রতিবাদ সমাবেশ, মানববন্ধন

» ছাত্রলীগের পদ প্রত্যাশায় ত্যাগী নেতাদের নিয়ে সমালোচনার প্রতিযোগীতা

» পরাণগঞ্জে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন প্রতিবাদ সমাবেশ

» কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের আগস্ট আলোচনা সভায় ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগ

» দলীয় সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে সম্মেলন;একান্ত স্বাক্ষাৎকারে-সাংঠনিক সম্পাদক নাদেল

আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com

,

basic-bank

মুক্তাগাছায় ছাগল পেপে গাছ খাওয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের আঘাতে যুবক নিহত

বিল্লাল হোসেন প্রান্তঃ

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার পল্লী এলাকায় ছাগলে পেপে গাছ খাওয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের সাবালের আঘাতে সোহেল (৩৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। এতে আহত হয় আরও চারজন। আহতরা হলেন, মাওলানা ফয়জুর রহমান সুরুজ, দেলোয়ার হোসেন, শফিকুল ইসলাম,হাফিজুর রহমান।

 

 

এ ঘটনায় নিহত সোহেলের বড় ভাই মাওলানা ফয়জুর রহমান সুরুজ বাদি হয়ে মুক্তাগাছা থানায় আঃ সামাদ বাদলকে প্রধান আসামিসহ ৫ জনের নাম উল্লেখ পূর্বক ৪/৫ অজ্ঞাত আসামি করে মামলা দায়ের করেন। আসামিরা হলেন, মকবুল হোসেন, তার তিন ছেলে আব্দুস সামাদ বাদল, মাসুদ ও বাবুল, হোসনে আরা স্বামী আব্দুস সামাদ বাদল।

 

 

রবিবার (২৮ জুন) দুপুরে পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এর আগে শনিবার বিকেলে উপজেলার খেরুয়াজানি ইউনিয়নের ঘরবাজাইল গ্রামে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। গ্রামটিতে আতংকাবস্থা বিরাজ করছে। হত্যাকান্ডের পর থেকেই আসামিরা বাড়িঘর ছেলে পলাতক বলে গ্রামবাসী জানায়।

 

 

নিহতের স্বজনরা অভিযোগ করে বলেন, গত শুক্রবার প্রতিবেশী বাদলের একটি পেঁপে গাছ খায় সোহেলের ছাগল। পরে ওই ছাগলেকে বাদলের স্ত্রী খোয়ারে দিয়ে আসে। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। শুক্রবারের কথা কাটাকাটির জেরে শনিবার পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়ে সোহেলসহ তার পরিবারের ৫ জনকে দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে আহত করে। পরেরদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোহেল মৃত্যু বরণ করে।

প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে ফিরে আসা নিহত সোহেলের বড় ভাই মাওলানা ফয়জুর রহমান সুরুজ বলেন, বাদলের পরিবারটি এই গ্রামে সব সময়েই বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে থাকে। তুচ্ছ একটি ঘটনাকে নিয়ে আজ আমার ভাইকে তারা খুন করে ফেলেছে।

 

 

তিনি এ হত্যাকান্ডের তদন্তপূর্ক সঠিক বিচার দাবি করে বলেন, বাদল ও তার স্ত্রী শুক্রবার বাকবিতন্ডার সময়ই সোহেলকে হত্যার হুমকি দেয়। এ ঘটনায় শনিবার দুপুরে সোহেল মুক্তাগাছা থানায় জিডি করতে বাড়ি থেকে বের হলে রাস্তায় বাদল,তার স্ত্রীসহ লোকজন অতর্কিত হামলা চালায়। সোহেলের মাথায় সাবাল দিয়ে আঘাত করে তাকে গুরতর আহত করে। পরে তার মৃত্যু হয়।

 

 

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী মোঃ কাউসার আলী বলেন, আমি ঘাস কাটছিলাম দেখলাম কিছু লোক সাবাল, কোচ, রামদা নিয়ে সোহেলসহ তার ভাইকে মারছে। আমি আসতে আসতে সোহেল মাটিতে পড়ে গেল। তার শরীর দিয়ে রক্ত পড়ছে। এসময় আমি বাদল ও সোহেলের ভাইদের দুই দিকে সড়িয়ে দেই। পরে এলাকাবাসীদের সহায়তায় সোহেলসহ আহতদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোহেলের মৃত্যু হয়।

 

 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মুক্তাগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ বিপ্লব কুমার বিশ্বাস বলেন, ছাগল পেঁপে গাছ খেয়েছে এমন ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঝগড়া হয়। এনিয়ে মারামারির এক পর্যায়ে একজন খুন হয়েছে। এঘটনায় মামলা হয়েছে। মামলার আসামি বাদলের পিতা মকবুল হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানান ওসি।

Print Friendly, PDF & Email
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন : Share on Facebook
Facebook
0Tweet about this on Twitter
Twitter
Share on LinkedIn
Linkedin

সর্বশেষ খবর



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

২২ সি কে ঘোষ রোড, ময়মনসিংহ
বার্তা কক্ষ : ০১৭৩৬ ৫১৪ ৮৭২
ইমেইল : dailyjonomot@gmail.com

© সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার দৈনিক জনমত .কম

কারিগরি সহযোগিতায় BDiTZone.com